ডেস্ক: সরকার বিরোধী কণ্ঠ যে তোলা যাবে না তা বারবার প্রমাণিত হয়েছে। বিভিন্নভাবে নানা ছলে বলে কৌশলে সরকার বিরোধী কণ্ঠ দমিয়ে দেওয়া হয়েছে। একটু কিছু সরকারের বিরুদ্ধে গিয়ে লিখলেই রোষের মুখে পড়তে হয়েছে বহু সাংবাদিকদের। এমনকি অনেককেই প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয়। তাই এবার সাংবাদিকদের কণ্ঠরোধ করতে কিছুটা টেকনিক্যাল উপায় আনা হয়েছে। এগিয়ে এসেছে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজন সাংবাদিকদের ফেসবুক আইডি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সাম্প্রতিককালে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মানুষের কাছে যে কোনও বক্তব্য পৌঁছে দেওয়া যায়। তারই মধ্যে অন্যতম হল এই ফেসবুক অ্যাপ।

যে কোনও প্রতিষ্ঠিত সংবাদমাধ্যমের তরফ থেকে বিতর্কিত পোস্ট করা যতটা কঠিন, ফেসবুকে ততটাও কঠিন হয় না। নিজের ফেসবুক আইডি থেকে যে কোনও বক্তব্য পোস্ট করতে তেমন কোনও ফিল্টারের মধ্যে দিয়ে যেতে হয় না অ্যাকাউন্টধারীদের। ফলে বহু সাংবাদিকই সংবাদমাধ্যমের পাশাপাশি ফেসবুকেও বহু লেখালেখি চালিয়ে যান। ফলে এখানে অবাধে সরকারের তীব্র সমালোচনা করা যায়। কোনও বাধ্য বাধকতা থাকে না। এই বিষয়টিকেই বন্ধ করতে উঠে পড়ে লেগেছে সরকার। যার জেরে একের পর এক সাংবাদিকদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যেই প্রতিষ্ঠিত গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। যেমন জনতা কা রিপোর্টার, মহানগর ২৪X৭ ওয়েব পোর্টাল, ক্যারাভান ডেইলি, বোলতা হিন্দুস্তান পত্রিকার কয়েকজন সাংবাদিকদের ফেসবুক আইডি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ফেসবুক কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, একাধিকবার মোদী সরকার বিরোধী কথা বলার ‘অপরাধে’ কয়েকজন সাংবাদিকদের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছি। অন্যদিকে বহু সাংবাদিক দাবি করছেন যে, রাফাল দুর্নীতি নিয়ে খবর প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই ফেসবুক এত তৎপর হয়ে উঠেছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here