Parul

মহানগর ডেস্কঃ ব্ল্যাক ফাঙ্গাস অপরিচিত কোন নাম নয়। করোনা অতিমারির আগেও কাল ছত্রাকের সঙ্গে পরিচয় ছিল চিকিৎসা জগতের। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে পরিচিত এই ছোড়া কি এখন মহামারি। পাকস্থলীতে কি বাসা বাঁধছে কালো ছত্রাক?

ads

হালের কিছু ঘটনা নতুন করে ভাবতে বাধ্য করছে চিকিৎসকদের। গত দুই সপ্তাহে দুজন রোগীর অন্ত্র এবং প্যানক্রিয়াসে পাওয়া গিয়েছে কালো ছত্রাক। দুজনেই মাসখানেক আগেই মুক্তি পেয়েছিলেন করোনা ভাইরাসের হাত থেকে।

চৈত্র রাম হাসপাতালের ডঃ অজয় জৈন বলেছেন, ‘আক্রান্তদের মধ্যে ৬২ বছরের এক ব্যক্তি এসেছিলেন পেটের সমস্যা নিয়ে। আমরা যখন তার চিকিৎসা শুরু করি তখন জানতে পারি ব্যক্তির ক্ষুদ্রান্তে মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে ব্ল্যাক ফাংগাস। ক্ষুদ্রান্তের ক্ষতিগ্রস্ত অংশটুকু আমাদের কেটে বাদ দিতে হয়েছে। চিকিৎসা শুরু করার পরে জানতে পেরেছিলাম যে কালো ছত্রাক সেখানে হানা দিয়েছে।’

অন্য একটি ঘটনার কথা জানা গেল শ্রী অরবিন্দ ইনস্টিটিউটের ডাঃ রবি দোসির কাছ থেকে। তিনি জানিয়েছেন, ‘দশ জনের মধ্যে দুই রোগীর পাকস্থলীতে পাওয়া গিয়েছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। বাকি আটজনের ক্ষেত্রে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ হয়েছে ফুসফুসে। যারা কোভিড থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন তাদের মধ্যেই দেখা দিচ্ছে এই সমস্যা।’ সরকারি তথ্য অনুযায়ী শুধুমাত্র ইন্দৌরেই ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে ভুগছেন ৫০০ রোগী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here