Home Featured মঙ্গলবার মাঝ রাতে বাজেয়াপ্ত ভুয়ো সিবিআই আধিকারিকের গাড়ি

মঙ্গলবার মাঝ রাতে বাজেয়াপ্ত ভুয়ো সিবিআই আধিকারিকের গাড়ি

0
মঙ্গলবার মাঝ রাতে বাজেয়াপ্ত ভুয়ো সিবিআই আধিকারিকের গাড়ি
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি:    ভুয়ো সিবিআই অফিসার শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নীলবাতি লাগানো গাড়ি বাজেয়াপ্ত করল জগাছা থানার পুলিশ। ২৭৫ নম্বর রবীন্দ্র সরণি থেকে তাঁর গাড়িটি উদ্ধার করা হয়েছে।   Wb 04 G 6310  নম্বরের কমার্শিয়াল গাড়িতে নীল বাতি লাগিয়ে শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ঘুরে বেড়াতেন বলে জানা গিয়েছে।

পুলিশি জেরায় গাড়ির মালিক রমেশ কায়েস্থ জানান, তিনি শুভদীপের চালকের হয়ে কাজ করতেন। সিবিআইয়ের তিনি যে আধিরারিক, এই বিষয়ে রমেশকে অথোরাইজড লেটারও দেখিয়েছিলেন শুভদীপ। তাই বিশ্বাস করে তিনি শুভদীপকে গাড়ি ভাড়া দিয়েছিলেন। এদিন গাড়ির সমস্ত কাগজ খতিয়ে দেখে পুলিশ। গাড়িটিকে বাজেয়াপ্ত করে জগাছা থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

ভুয়ো সিবিআই অফিসার বলে অভিযোগ তোলেন তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়। মে মাসে অভিযুক্তের প্রাক্তন স্ত্রী বধূ নির্যাতনের অভিযোগ করেন। তিনি অভিযোগে বলেন, নীলবাতি লাগানো গাড়ি নিয়ে ঘুরতেন। পরিচয় ভাঁড়িয়ে তিনি ভালবেসে বিয়েও করেছিলেন। স্ত্রীর সন্দেহ হয়, যিনি নিজেকে সিবিআই আধিকারিক হিসেবে পরিচয় দেন তিনি এতো ছুটি পান কীভাবে। সিজিও কমপ্লেক্সে গিয়ে তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী খোঁজ নেন। জানতে পারেন, শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় নামে কোনও সিবিআই আধিকারিক নেই।

তদন্তে জানা গিয়েছে, উনি নিজেকে কখনও সিবিআই আধিকারিক, কখনও রেলের আধিকারিক, কখনও লালবাজারে পোস্টিং বলে বিভিন্ন পরিচয় দিতেন। স্ত্রীর সন্দেহ হয় যে এতো বড়ো পদে উনি আছেন বলেন, অথচ তিনি সারাক্ষণ বাড়িতে থাকেন কীভাবে? জানা গিয়েছে, শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতারণার হদিশ ছিল না তাঁর বাবা-মার কাছেও। ছেলের এহেন কর্মকাণ্ড শুনে লজ্জিত তাঁর বাবা-মা। তাঁরা পুলিশের কাছ থেকেই প্রথম এই বিষয়ে জানতে চান। তাঁরা চাইছিলেন, ছেলেকে যেন গ্রেফতার করা হয়, না হলে তিনি যেন আত্মসমর্পন করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here