ডেস্ক: কৃষকদের আন্দোলনে দিনভর উত্তপ্ত রইল রাজধানী। যদিও কৃষকদের মিছিলকে দিল্লি ঢোকার আগেই উত্তরপ্রদেশের সীমান্তে আটকে দেওয়া হয়েছিল। কৃষক সমাজের দাবি দাওয়া নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর দীর্ঘমেয়াদি বৈঠকের পরও সেই জট খোলার কোনও লক্ষণ দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না। কৃষকদের ৭ দফা দাবি পূরণের আশ্বাস দিলেও অধ্যক্ষ নরেশ টিকেট জানিয়ে দিয়েছেন, তাদের আন্দোলন চলবে।

এদিন মিছিল করে উত্তরপ্রদেশ থেকে দিল্লিতে প্রবেশের চেষ্টা করলে দুই রাজ্যের সীমান্তেই আটকে দেওয়া হয় কৃষকদের মিছিল। চলে লাঠিচার্জ, জলকামান, কাঁদানে গ্যাস। তবে কোনও কিছুতেই দমার পাত্র নন তারাও। গান্ধীজির দেখানো অহিংস আন্দোলনের পথে হেঁটেই রাতভর ইউপি-দিল্লি বর্ডারেই তারা অবস্থান করবেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

অন্যদিকে কৃষকদের এই দুরবস্থার রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সংবাদ মাধ্যমের সামনে তিনি প্রশ্ন তোলেন, কৃষকদের দিল্লিতে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না কেন? কেজরিওয়ালের পাশাপাশি কৃষকদের হয়ে ব্যাট করতে ক্রিজে নামেন কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সুরযেওয়ালাও। বিজেপিকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, মোদী সরকার দেখিয়েই দিল স্বাধীনতার পূর্বে ব্রিটিশ শাসকদের থেকে কোনও অংশে কম নয় তারা।

কৃষকদের সমর্থন নেমে আসেন আরএলডি সভাপতি অজিত সিং। প্রতিবাদের সুর চড়ান সমাজবাদী পার্টির সভাপতি অখিলেশ যাদবও। তিনি বলেন, “কৃষকদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে কেন্দ্র। এবার তারা যে আন্দোলনে নেমে আসবেন এটাই তো স্বাভাবিক।”” পুলিশের পক্ষ থেকে যদিও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কোনও ভাবেই কৃষকদের দিল্লিতে ঢুকতে দেওয়া হবে না। এমতবস্থায় কৃষক আন্দোলনের অধ্যক্ষ নরেশ টিকেট সওয়াল করেন, আমাদের সমস্যার কথা তাহলে কাকে বলব? আমরা কি বাংলাদেশি না পাকিস্তানি যে তাদের গিয়ে বলব আমাদের সমস্যার কথা?”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here