farooq abdullah

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ এবং ৩৫এ ধারা প্রত্যাহারের পর কেটে গিয়েছে সাত মাস। শেষ পর্যন্ত আবদুল্লাহ পরিবারে এল খুশির খবর। অবশেষে মুক্তি পেতে চলেছেন জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ। তাঁকে আটক করে রাখা হয়েছিল জনসুরক্ষা আইনের আওতায়। এই আইনে জোরেই কোনও ট্রায়াল ছাড়াই আটক করা যায়। একই আইনে আটক করে রাখা হয়েছে জম্মু কাশ্মীরের আরও দুই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি এবং এবং ওমর আবদুল্লাহকে। অবশ্য তাদের কবে ছাড়া হবে তা কিছু জানায়নি উপত্যকা প্রশাসন।

গত বছরের ৫ অগস্ট কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সংসদে তরফে ঘোষণা করেন, জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখকে পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে বিবেচিত হবে। সেদিনই ওমর আবদুল্লাহ ও মেহমুবা মুফতিকে আটক করে প্রশাসন। কিছুক্ষণের মধ্যেই ফারুক আবদুল্লাহকেও আটক করা হয়। পরে রাজ্যসভায় জানানো হয়, জনসুরক্ষার আইনে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছিল। প্রসঙ্গত, কোনও ট্রায়াল ছাড়াই এই আইনে দু’বছর পর্যন্ত যে কোনও ব্যক্তিকে আটক করে রাখা সম্ভব।

তবে এই ধারা প্রয়োগ করে গ্রেফতারের নজির খুব একটা বেশি নেই বললেই চলে। সাধারণত জঙ্গি যোগ বা বিছিন্নতাবাদীদের আটকে রাখার জন্য এই আইন ব্যবহার করা হয়ে থাকে। কিন্তু ফারুক আবদুল্লাহই সম্ভবত এমন একজন তিনবারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী যাকে এই আইন প্রয়োগ করে আটকে রাখা হয়েছিল। তিনমাসের জন্য সেই আটকের মেয়াদ বাড়ানোও হয়। এদিন যা শেষ হয়েছে, এবং নতুন করে মেয়াদ বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করা হয়নি। ফলে জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিগগির বন্দিদশা থেকে ছুটি পেয়ে যেতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here