kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক:  মহারাষ্ট্রের মহাকাব্যর রচয়িতা লিখতেই পারতেন চোরা শিকারি বিজেপি। ভয়ে আছে কং- সেনা আর এনসিপি৷ বাস্তব তাই৷ নিজেদের সুরক্ষিত রাখতে কংগ্রেস, শিবসেনা ও এনসিপি তিনটি আলাদা হোটেলে কার্যত বন্দি করে রেখেছে তাদের বিধায়কদের৷ তবে উদ্ভুত রাজনৈতিক পরিস্থিতির চাপে সব বিধায়কদেরই মুম্বইয়ে বিভিন্ন বিলাসবহুল হোটেলে রেখেছে কংগ্রেস, শিবসেনা ও এনসিপি৷ বিজেপি বিধায়ক কিনতে পারে এই আতঙ্কেই দলগুলির বিধায়কদের নিয়ে এমন ‘বাঘ-বন্দি খেলা’৷

রবিবার সকালে কংগ্রেসর ৪৪ জন বিধায়কদের নিয়ে সভানেত্রীর ঘনীষ্ঠ তথা রাজ্যসভার সাংসদ আহমেদ প্যাটেল মুম্বইয়ের জুহুতে জে ডব্লিউ ম্যারিয়টে উঠেছেন৷ বিধায়কদের ওপর কড়া নজর রাখা হচ্ছে৷ এনসিপির ৫০ জন বিধায়করা পাওয়াই এর রেনেসাঁ হোটেলে কার্যত বন্দি আছেন৷ তাঁদের দলের কর্মীরা হোটেলের বাইরে কড়া পাহারা দিচ্ছেন৷ কারণ অজিত পাওয়ারের বিদ্রোহের পরে এনসিপিকেই সবার আগে ভাঙবে বিজেপি৷ আর তাই রেনেসাঁ হোটেলকে নিশ্ছিদ্র দুর্গ করে ফেলা হয়েছে৷ বাইরের কোনও লোকের সঙ্গে বিধায়কদের দেখ করতে দেওয়া হচ্ছে না৷ ওই হোটেলের অন্য আবাসিকদের সাময়িকভাবে স্থানান্তরিত করা হয়েছে৷ সংবাদ আমধ্যমের কোনও প্রতিনিধিদের সঙ্গে এনসিপি বিধায়কদের দেখা করতে দেওয়া হচ্ছে না৷ বিধায়কদের সামলানোর দায়িত্ব নিয়েছেন এনসিপির মুখপাত্র নবাব মালিক৷

শিবসেনার ৫৬ জন বিধায়কদের বালাসাহেবের বাড়ি মাতোশ্রীর কাছে ললিত হোটেলে আছেন৷ গত একমাসে বার বার বিজেপির বিধায়ক শিকারের হাত থেকে বিধায়কদের বাঁচতে এই হোটেলেই বন্দি করে রাখতে হচ্ছে শিবসেনাকে৷ আচমকা শনিবার কাকভোরে অজিত পাওয়ারের সাহায্যে বিজেপির মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের পরে অতিসক্রিয় হয়ে উঠেছে শিবসৈনিকরা৷ এদিকে এনসিপি কর্মীরা মহারাষ্ট্র জুড়ে দফায় দফায় অজিত পাওয়ারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে৷ উল্লেখ্য ২৮৮ আসনের মহারাষ্ট্র বিধানসভায় ২১ অক্টোবর রাজ্য ভোট হয়েছিল৷ ২৪ অক্টোবর ফল প্রকাশিত হয়েছিল৷ এখানে দেখা গিয়েছে বিজেপি ১০৫টি আসন, শিবসেনা ৫৪, এনসিপি৫৬ , কংগ্রেস ৪৪ ও অন্যান্য দল ২৮৷ কোনও দল এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি৷ কথা ছিল কংগ্রেস- এনসিপি ও শিবসেনা মিলে জোট সরকার গঠনের৷ তবে এনসিপির অজিত পাওয়ারের গদ্দারির জন্য বিজেপি আচমকা ফের এই রাজ্যে সরকার গঠন করেছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here