ডেস্ক: সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভায় সামিয়ানা ভেঙে পড়ার ঘটনার অবশেষে তদন্ত শুরু করল রাজ্য ও কেন্দ্র প্রশাসন। ভাষণ চলাকালীন কিভাবে ওই সভার লোহার কাঠামো দেওয়া সামিয়ানা ভেঙে পড়ল, তার পেছনে কার গাফিলতি থাকতে পারে তা দেখার জন্য তদন্ত শুরু হয়ে গিয়েছে। ঘটনার পরেই সোমবার রাত থেকে জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই মাঠটিকে চারদিক থেকে সিল করে দেওয়া হয়েছে। ওই প্যান্ডেল নির্মাণে কর্মরত কর্মীদের সকলকেই কোন রকম কাজ করতে বারণ করে দেওয়া হয়েছে। কোতোয়ালি থানার পুলিশকর্মীদের সমস্ত কিছু পর্যবেক্ষণ করার জন্য স্থায়ীভাবে নিয়োগ করা হয়েছে। জানা গিয়েছে যে, আজ এই ঘটনার তদন্ত করতে মেদিনীপুরে যাচ্ছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের দুই কর্তা। সিআইডির একটি বিশেষ দলও আসছে। অবশ্য রাজ্য ফরেন্সিকের একটি দল সবকিছু পরীক্ষা করে বলেছে যে প্যান্ডেলের কাঠামো অত্যন্ত দুর্বল ছিল বলেই এই ঘটনাটি ঘটেছে।

সোমবার মেদিনীপুরে মোদীর সভাস্থলে সামিয়ানা ভেঙে পড়ার ঘটনায় বিভিন্ন কেন্দ্রীয় সংস্থা রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে নিরাপত্তায় গাফিলতির অভিযোগ তুলেছিল। যদিও রাজ্যের তরফে সেই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আধিকারিকরা সোমবার সভাস্থল থেকেই রাজ্যের ডিজির সঙ্গে সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় ফাঁকফোকর থাকা নিয়ে অভিযোগ করেন। অন্যদিকে রাজ্যের তরফে জানানো হয়েছে, রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়েই মাঠে যত লোক ধরে, তার থেকে বেশি লোক ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল।

গতকাল সভা চলাকালীন একটি সামিয়ানার ছাদ ভেঙে ৯০ জন আহত হয়েছিলেন। তাদের প্রত্যেককেই মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। কিন্তু একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁকে কলকাতায় আনা হয়েছে। এই ঘটনার পর প্রধানমন্ত্রী নিজে আহতদের দেখতে হাসপাতালে যান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here