নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁচল: বাড়ির বাথরুম থেকে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার কিশোরীর দেহ। মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে জাওয়ার পথে মৃত্যু হয় ওই কিশোরীর। ঘটনাটি ঘটেছে মালদা জেলার চাঁচল থানার অন্তর্গত ভবানীপুর গ্রামে। মৃত্যুর কারণ নিয়ে দেখা দিয়েছে ধোঁয়াশা । ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে চাঁচল থানার পুলিশ।

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত কিশোরীর নাম পূজা সাহা(১৩)। বুধবার বিকেলে তার মা অনিতা সাহা চাঁচল হাটে বাজার করতে গেছিলেন। সেই সময়ে বাড়িতে ছিলেন ওই কিশোরী এবং তার বাবা। দুপুরে খাওয়া দাওয়ার পর মৃত কিশোরীর বাবা সুকুমার সাহাও ঘুমোতে চলে যান। ঘুমের মধ্যেই কিছুক্ষণ পর পোড়া গন্ধ পান পূজার বাবা। বাইরে বেড়িয়ে দেখেন বাথরুম থেকে ধোঁয়া বেরোচ্ছে। এরপরই মেয়েকে দেখতে না পেয়ে বাথরুমের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকেন, সেখানে তিনি দেখতে পান তার মেয়ে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় পড়ে রয়েছে। ওই অবস্থায় মেয়েকে উদ্ধার করে প্রথমে সুকুমার বাবু চাঁচল হাসপাতাল এবং পরে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে জাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় ওই কিশোরী। মাত্র তের বছরের ওই বালিকা কিভাবে নিজের গায়ে আগুন দিলেন এই প্রশ্ন ঘিরেই বাড়ছে রহস্য। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। পুলিশের দাবি এই ঘটনায় কেউই সন্দেহের ঊর্ধ্বে নয়। যদিও মৃত্যুর কারণ নিয়ে কিছুই জানেন না বলে দাবি মৃতার বাবা মার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here