kolkata news
Highlights

  • দোলের দিন নিজের এলাকায় আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে বাসিন্দাদের ভয় দেখানো ও ছিনতাইয়ের ঘটনায় স্বামীকে সঙ্গ দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার স্ত্রী
  • ধৃত ওই মহিলাকে বৃহস্পতিবার রায়গঞ্জ জেলা আদালতে তোলা হয়
  • স্বামীর সঙ্গে তার স্ত্রী পলি মিত্র এলাকার কিছু মহিলাকে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ভয় দেখায় বলে অভিযোগ


নিজস্ব প্রতিনিধি, রায়গঞ্জ:
দোলের দিন নিজের এলাকায় আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে বাসিন্দাদের ভয় দেখানো ও ছিনতাইয়ের ঘটনায় স্বামীকে সঙ্গ দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার স্ত্রী। ধৃত ওই মহিলাকে বৃহস্পতিবার রায়গঞ্জ জেলা আদালতে তোলা হয়। উল্লেখ্য, বুধবার এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পলি মিত্র নামে ওই মহিলাকে গ্রেফতার করে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। অভিযোগ, পাড়ার একটি বসন্ত উৎসবের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার কারণে মঙ্গলবার রায়গঞ্জের ২নং ওয়ার্ডে দক্ষিণ সুদর্শনপুর ও সেবক পল্লি এলাকায় স্থানীয়দের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হামলা চালায় তাতন মিত্র নামে স্থানীয় এক যুবক। এলাকাবাসী ওই বসন্ত উৎসবে যোগ দেওয়ায় তাদের নানাভাবে হুমকি দিতে থাকে বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়, দলবল নিয়ে বেশ কয়েকজন বাসিন্দার বাড়িতে ঢুকে ওই দুষ্কৃতী অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এমনকী মহিলাদের শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ।

পাশাপাশি স্বামীর সঙ্গে তার স্ত্রী পলি মিত্র এলাকার কিছু মহিলাকে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ভয় দেখায় বলে অভিযোগ। এদিকে দিনের পর দিন ওই এলাকায় দুষ্কৃতীদের বাড়বাড়ন্ত রুখতে প্রতিবাদে ফেটে পড়েন স্থানীয়রা। মঙ্গলবার সস্ত্রীক তাতন মিত্র ও তার দলবলের এই হামলার সময় এলাকার মহিলারা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের ধরে ফেলে। শুরু হয় মারধর। খবর পেয়ে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সেই সময় তাতন মিত্র ও তার স্ত্রী কোনও রকমে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

এদিকে রায়গঞ্জ থানা এবং রায়গঞ্জ পুলিশ জেলার সুপার সুমিত কুমারের কাছে সংঘবদ্ধভাবে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন দক্ষিণ সুদর্শনপুর ও সেবকপল্লির বাসিন্দারা। বাসিন্দাদের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার বিকেলে পলি মিত্র নামে ওই মহিলাকে গ্রেফতার করে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। জানা গেছে, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ৩০৭, ৫০৬/৩৪ আইপিসি, ২৫/২৭, ৩৫৬, ৩২৩, ৩৮৭, ৪৪৮ ধারায় খুনের চেষ্টা, আগ্নেয়াস্ত্র, হুমকি-সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ধৃতকে এদিন রায়গঞ্জ জেলা আদালতে তোলা হয়। তবে মূল অভিযুক্ত তাতন মিত্র পলাতক বলে জানিয়েছে পুলিশ। এদিন রায়গঞ্জের পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানিয়েছেন, ‘ধৃতদের বিরুদ্ধে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ভয় দেখানো, তোলাবাজি সহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে। মূল অভিযুক্ত এখনও পলাতক। আমরা খোঁজ শুরু করেছি। তদন্ত চলছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here