kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগণার বীজপুরে তৃণমূলে বড়সড় ভাঙ্গন৷ কাঁচরাপাড়ায় শুক্রবার সকালে মুকুল রায়ের বাড়িতে গিয়ে অর্জুন সিংয়ের হাত ধরে তৃণমূল  ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন হালিশহর পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান রাজা দত্ত, হালিশহরের তৃণমূল যুব নেতা সুদীপ্ত দাস সহ কয়েক হাজার তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী সমর্থক। তৃণমূল  ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়ে যুব তৃণমূল নেতা সুদীপ্ত দাস বলেন, ‘আগামী দিনে কাঁচরাপাড়া বা বীজপুরে তৃণমূল বলে কিছুই থাকবে না। এই অঞ্চলে তৃণমূল নেতারা কেউ কর্মীদের পাশে নেই। তৃণমূলের কর্মীরা বিপদে পড়লে কোনও নেতা সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে না। বিপদের সময় তথাকথিত তৃণমূল নেতাদের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকে। কিন্তু আমাদের নেতা অর্জুন সিং একমাত্র ব্যাক্তি, যিনি রাস্তায় আমাদের পাশে থেকে লড়াই করে। দাদা এখন বিজেপিতে তাই অর্জুন দার পাশে আমরা। এদিন হালিশহরে একসঙ্গে এতজন কর্মী সমর্থক তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করায় বড়সড় ধাক্কা খেল দল, এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা৷

হালিশহর পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান রাজা দত্ত বিজেপিতে যোগ দিয়ে বলেন, ‘তৃণমূল কংগ্রেসে থেকে রাজনৈতিক সম্মান পাইনি। ওই দলে এখন শুধু দুর্নীতি। পুরসভার দুর্নীতি সব সামনে আনব। আমি দুর্নীতির সঙ্গে আপস করিনি। ওই দলে এখন তোলাবাজি চলছে।’ এদিকে এদিন সুদীপ্ত দাস অর্জুন সিংয়ের হাত ধরতেই তাকে গ্রেফাতার করতে তৎপর হয়ে ওঠে বীজপুর থানার পুলিশ। মুকুল রায়ের বাড়ির সামনে থেকে কোনও মতে পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে গা ঢাকা দেয় সুদীপ্ত দাস।

এই ঘটনায় বীজপুরে ব্যপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। অর্জুন সিংয়ের নেতৃত্বে কয়েকশ বিজেপি কর্মী বিজপুর থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। অর্জুন সিং বলেন, ‘পুলিশ এখন নির্লজ্জ ‘দলদাস’ হয়ে কাজ করছে। তৃণমূল কংগ্রেসের পায়ের তলায় মাটি নেই। এখন পুলিশকে নিয়ে মিথ্যচার করছে। ওই দলে এখন গুন্ডা, দালাল চক্র ভরে গেছে। তৃণমূল বাংলাকে কাশ্মীর এবং পাকিস্তান তৈরি করতে চাইছে। পুরনো তৃণমূল কর্মীরা এখন সবাই বিজেপিতে আসছে। অটো চালক, গাড়ি চালক, দোকানদার, গরীব মানুষ সবাই এখন শ্রী রামের গান গাইছে। তৃণমূল যতদিন যাবে তত জন গণের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে,”জানান অর্জুন৷”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here