নিজস্ব প্রতিবেদক, মেদিনীপুর: গরু কেনাবেচাকে কেন্দ্র করে এক গরু ব্যবসায়ীর সঙ্গে পাশের গ্রামের আদিবাসীদের বচসা৷ তা থেকেই তর্ক, হাতাহাতি মারধর৷ আর তা থেকেই ছড়িয়ে পড়ল উত্তেজনা৷ পাশের গ্রামের আদিবাসীদের হাতে মার খেয়ে ওই গরু ব্যবসায়ী নিজের গ্রামে এসে জানালে, উত্তেজিত গরু ব্যবসায়ীর গ্রামের বাসিন্দারা সশস্ত্র অবস্থায় আক্রমণ করে ওই আদিবাসীদের গ্রামে৷ মুহূর্তে দুই গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়৷

ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের মেদিনীপুর সদর ব্লকের বনপুরা ও মহাদেবচক গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে৷

বুধবার সন্ধ্যার সময় এই ঘটনার সূত্রপাত হয়৷ সংঘর্ষ চলে রাত্রি প্রায় নটা পর্যন্ত৷ দুই পক্ষের সংঘর্ষে ১২ জন জখম হয়েছেন৷ তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন তির বিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি৷ তাছাড়া লাঠি টাঙ্গি এসবের আক্রমণেও মাথায় চোট লেগেছে কারও৷ কেউ বা হাত-পা ভেঙেছে৷ উত্তেজনা সামাল দিতে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় কোতোয়ালি থানার পুলিশ৷ ছুটে যেতে হয় জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সচিন মক্কর সহ অন্যান্য পুলিশকর্তাদের৷ গভীর রাত পর্যন্ত তাদের প্রচেষ্টায় গ্রামের পরিস্থিতি সামাল দেওয়া সম্ভব হয়৷ আক্রান্তরা অনেকেই ভর্তি রয়েছেন মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে৷

স্থানীয় সুত্রে খবর, বনপুরা গ্রামের এক গরু ব্যবসায়ী গরু কেনার জন্য পাশের গ্রাম মহাদেবচকে এক ব্যক্তিকে অগ্রিম দিয়েছিলেন৷ তাঁর সঙ্গে করা চুক্তি মতো বুধবার বিকেলে গরু আনতে গিয়েছিলেন মহাদেবচক গ্রামে৷ কিন্তু গিয়ে জানতে পারেন, গরুর দাম বেশি পাওয়াতে ওই বিক্রেতা অন্য কাউকে গরুটি বিক্রি করে দিয়েছেন৷ এরপরই ব্যবসায়ীর সঙ্গে তর্ক বচসা শুরু হয় ক্রেতার৷ দুই পক্ষের মধ্যে তর্ক থেকে ক্রমশ হাতাহাতি শুরু হয়ে গিয়েছিল৷ মহাদেবচক গ্রামে মার খেয়ে বনপুরার ওই গরু ব্যবসায়ী নিজের গ্রামে ফিরে গ্রামের বাসিন্দাদের ঘটনার কথা জানায়৷ তখনই তারা জ্বলে ওঠে তেলে বেগুনে। তারপরই বনপুরা গ্রামের বাসিন্দারা জোট বেঁধে গিয়ে পাল্টা হামলা করে মহাদেবচক গ্রামের আদিবাসীদের উপর৷ বুধবার সন্ধার পরে এই সংঘর্ষে আদিবাসীদের ছোঁড়া তিরে ৫ জন তিরবিদ্ধ হন, অনেকে লাঠি টাঙ্গীর আঘাতে আহত হন৷ রাতেই এদের অনেকে ভর্তি হয়েছেন মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে৷

রাতে আক্রান্তদের দেখতে হাজির হয়েছিলেন এলাকার বিধায়ক দিনেন রায় ৷ তিনি বলেন, “গরু কেনার জন্য পাশের গ্রামে গিয়ে তর্ক বচসায় জড়িয়ে পড়ে বনপুর গ্রামের এক ক্রেতা৷ তা থেকেই এই সংঘর্ষ শুরু হয়েছিল৷ বেশ কয়েকজন আক্রান্ত হয়েছে৷ পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দিচ্ছে৷”””

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here