ডেস্ক: গুজরাটের এক অভিজাত স্কুলের শৌচালয় থেকে উদ্ধার হল নবম শ্রেণীর ছাত্রের মৃতদেহ। এই ঘটনা গুরুগ্রামের রায়ান ইন্টারন্যাশানল স্কুলের প্রদ্যুন্ন ঠাকুরের খুনের কথা আরও একবার মনে করিয়ে দিল। মৃত ছাত্রটির বয়স ১৪ বছর। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার স্কুলের শৌচালয় থেকে পাওয়া যায় ওই ছাত্রের নিথর দেহ। মৃতদেহের পাশ থেকে উদ্ধার হয়েছে একটি রক্ত মাখা ছুরি। ইতমধ্যেই দেহটিকে উদ্ধারের ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তের পুলিশ জানতে পেরেছে, গত বৃহস্পতিবার মৃত ওই ছাত্রের সাথে দশম শ্রেণীর সিনিয়র এক ছাত্রের কথা কাটাকাটি হয়েছিল। সেই বচসার জেরেই এই খুন কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। উল্লেখ্য এই ঘটনার পর থেকেই নিখোঁজ দশম শ্রেণীর অভিযুক্ত ছাত্র। গোপন ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে এখনও সেরকম কোন সূত্র পাওয়া যায়নি।

গত বছর একই রকম একটি ঘটনা ঘটেছিল গুরুগ্রামের রায়ান ইন্টারন্যাশানাল স্কুলে। প্রদ্যুন্ন ঠাকুর নামের এক ছাত্রকে গলা কেটে শৌচালয়ে ফেলে রেখেছিল। পরে এই ঘটনায় গ্রেফতার করে হয় স্কুলবাসের চালক। তবে এখানে প্রাথমিক ভাবে ছাত্রদের মধ্যেকার বচসাকেই মৃত্যুর কারণ হিসাবে মনে করছে পুলিশ। এছাড়াও অন্য কোন কারণ আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এই ঘটনার পর স্কুলে ছাত্রদের নিরাপত্তা ও স্কুলের দুর্বল পরিকাঠামো নিয়েও নানান প্রশ্ন তুলছেন অবিভাবকরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here