ডেস্ক: প্রথমে অপহরণ, তারপর নির্জন জায়গায় নিয়ে গিয়ে একে একে ৮ জন মিলে গণধর্ষণ করে তাকে। দোষীদের চিনত সে। কিন্তু থানায় অভিযোগ দায়ের করার চেষ্টা করা হলে অভিযুক্তদের পরিবার ও প্রভাবশালীদের থেকে ক্রমাগত আসত হুমকি। এই অপমান ও লজ্জা থেকে মুক্তি পেতে শেষে আত্মহত্যার পথই বেছে নিল ১৭ বছরের এক কিশোরী। ঘটনাটি ঘটেছে হরিয়ানার মেওয়াটে।

সূত্রের খবর, মেওয়াটের নূহ জেলার বাসিন্দা ১৭ বছরের ওই কিশোরী থাকত তার বাবা মায়েয়র সঙ্গেই। রবিবার বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে ওই কিশোরীকে অপহরণ করে ৮ যুবক। তারপর একে একে তার উপর চলে নৃশংস অত্যাচার। পরে পার্শবর্তী মোহন রোডের নির্জন এলাকা থেকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উদ্ধার করা হয় তাকে। এরপর থেকেই মানসিক ভাবে ভেঙে পড়ে সে। মঙ্গলবার বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে ওই কিশোরী।

মৃতার বাবার অভিযোগ, মেয়েটি প্রত্যেক অপরাধীকে চিহ্নিত করেছিল। থানায় অভিযোগ দায়ের করার চেষ্টা করা হলে অভিযুক্তদের পরিবারের পাশাপাশি গ্রামের প্রভাবশালীরা অনবরত হুমকি দিয়ে যেত। ঘটনার পর থেকেই মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিল তাঁর মেয়ে। এদিকে মেয়েটি আত্মহত্যার পর থেকেই বেপাত্তা অভিযুক্তরা। তাদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণ, অপহরণ ও আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পলাতক অভিযুক্তদের খোঁজে ইতিমধ্যেই তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here