ডেস্ক: অমানবিক!
প্রকাশ্যে এক যুবতীকে বেধড়ক মারধর করছে একদল মদ্যপ লোক৷ একটি ট্যাক্সির পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বছর বাইশের ওই যুবতীকে মারধরের পর তাঁর চুল ধরে টানতে শুরু করেছে দুজন৷ আর এই হেনস্থার ছবি ভিডিওতে তুলে যাচ্ছে একজন৷ মার খাওয়ার পর পুলিশে ফোন করতে যেতেই তাঁকে সপাটে লাথি ৷ আতঙ্কে চেঁচিয়ে উঠছেন যুবতাটি৷ এখানেই শেষ নয়, যুবতীকে বেধড়ক মারধর,লাথি মারার পর এবার তাঁর পুরুষ সঙ্গীর পালা৷ মত্ত ব্যক্তিরা লাথি মারতে থাকে এবং তাঁকে ধাক্কা মারতে শুরু করে৷ এই লজ্জাজনক ঘটনাটি ঘটেছে বিজেপি শাসিত অসমের রাজধানী গুয়াহাটি থেকে ১৩০ কিলোমিটার দূরে গোলাপাড়া জেলায়৷ এই ঘটনায় ১২জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷

 

পুলিশ জানিয়েছে, বাইশ বছরের যুবতীটি গারো সম্প্রদায়ের৷ পুরুষ সঙ্গীটি মুসলিম৷ মত্ত যুবকেরা ভেবেছিল দু জনের মধ্যে সম্পর্ক রয়েছে৷ সেটা ভেবেই তারা আইন নিজেদের হাতে তুলে নেয়৷ পুলিশ কর্তা অমিতাভ সিনহা জানিয়েছেন, একটি মামলা রুজু করা হয়েছে৷ ১২জন গ্রেফতার হয়েছে৷ মূল অভিযুক্তকে ধরার সবরকম চেষ্টা চলছে৷ তিনি জানান, যুবতীটির বিয়ে ঠিক হয়ে গিয়েছিল৷ ওই পুরুষটির সঙ্গে তিনি একটি ওষুধের দোকানে যাচ্ছিলেন৷ সেসময়ই তাঁরা মত্ত পুরুষদের নজরে পড়েন৷ মেঘালয়ের মহিলা অধিকার নিয়ে লড়াই করা সমাজকর্মী জেইনি সাংমা জানিয়েছেন, যে ভিডিওটি তোলা হয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে একদল মত্ত লোক ওই যুবতীকে নৃশংসভাবে মারধর করছে৷ তাঁকে চড় থাপ্পর মারছে৷ প্রকাশ্যে লাথি মারছে লোকগুলো৷ প্রসঙ্গত, মেঘালয়ের গারো পাহাড়ের পাদদেশ এবং প্রতিবেশী অসমের কামরূপ ও গোলাপাড়ায় বিপুল সংখ্যক গারো উপজাতি বাস করেন৷ মুসলিম সম্প্রদায়েরও প্রচুর মানুষ বাস করেন ওইসব অঞ্চলে৷ এই মুহূর্তে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ-প্রশাসন কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here