ডেস্ক: ২০১৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর নিজের বাড়িতে খুন হন সাংবাদিক গৌরি লঙ্কেশ। প্রায় ১ বছরের মাথায় সেই খুনের চার্জশীট পেশ করল পুলিশ। আদালতে পেশ করা ১২ পাতার সেই চার্জশিট থেকেই উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। এই হত্যাকান্ডে অভিযুক্ত কেটি নবীন নামে যে ব্যক্তি রয়েছে, পুলিশকে দেওয়া জবানবন্দি অনুযায়ী খুন সে করেনি। তবে গৌরি খুনের জন্য গুলি সেই সরবরাহ করেছিল।

একইসঙ্গে আরও চাঞ্চল্যকর যে তথ্য পাওয়া গিয়েছে তা হল, ২০১৫ সালে কন্নড় লেখক এমএম কুলবার্গী খুনেও ব্যবহার করা হয় একই বন্দুক। ৭.৬৫এমএম কান্ট্রি বন্দুক। জেরায় পাওয়া তথ্য অনুযায়ী নবীনের বক্তব্য, তাঁকে বলা হয়েছিল গৌরি লঙ্কেশ হিন্দুত্ব বিরোধী। তাঁকে খুন করার জন্য গুলির প্রয়োজন। নবীন আগ্নেয়াস্ত্র ডিলার হওয়ায় গুলি সরবরাহ করে সে। এই নবীন হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের সঙ্গে ওতপ্রোত ভাবে জড়িত ২০১৪ সালে হিন্দু যুব সেনা নামের এক হিন্দু সংগঠনও তৈরি করে সে। এমনকি যুক্তিবাদি অধ্যাপক কেএস ভগবানকে খুনের ছকও নবীনই করেছিল।

পুলিশের তরফে আরও জানানো হয়েছে, খুনি প্রবীনের সঙ্গে আলাপ ছিল নবীন নামের এই অস্ত্র সরবরাহকারীর। একদিন গৌরি লঙ্কেশকে খুনের জন্য নবীনের কাছ থেকে গুলি চায় প্রবীণ। গুলির জোগাড় হওয়ার পর, বেশ কয়েকবার গৌরি লঙ্কেশের বাড়ির সামনে থেকে রেইকি করে অভিযুক্তরা। সেখান থেকেই তৈরি হয় খুনের ব্লুপ্রিন্ট। ২০১৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর নিজের বাড়িতে খুন হন সাংবাদিক গৌরি লঙ্কেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here