ডেস্ক: ”বিদেশ সফর থেকে ফেরার সময় নিরব মোদীকেও নিয়ে ফিরবেন।” ভোটমুখী মেঘালয়ে নির্বাচনী সফরে গিয়ে আক্রমণাত্মক ভাষাতে পিএনবি কাণ্ডে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিশানায় নিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি। পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কে জালিয়াতির ইস্যুকে লক্ষ্যে নিয়েই এবার বিজেপিকে বিঁধতে পথে নামলেন রাহুল।

নির্বাচনের ফাইনাল লোকসভা ভোটের প্রায় একবছর বাকি থাকতেই পিএনবি জালিয়াতি কাণ্ড প্রকাশ্যে আসে। ইস্যুটিকে নিয়ে একে অপরের উপর দোষারোপের পালাও চলতে থাকে। কিন্তু সিবিআই এফআইআরে গত বছরই ৫০০০ কোটির জালিয়াতি হয়েছিল প্রকাশ্যে আসতেই বিজেপির উপর আরও চেপে বসতে চাইছেন রাহুল। এই ইস্যুটি প্রকাশ্যে আসতে হাতে চাঁদ পেয়েছে বাকি বিরোধী দলগুলিও। মেঘালয়ে বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে পিএনবি কেলেঙ্কারিকেই নিশানায় নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার তথা নরেন্দ্র মোদীকে বিঁধলেন রাহুল। কংগ্রেস সভাপতি বলেন, ”আমি প্রত্যেকের তরফ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করব, প্রত্যেকবারের মতো এরপর যখন বিদেশ সফরে যাবেন নিরব মোদীকে নিয়ে ফিরবেন। আমরা দেশবাসী হিসাবে আমাদের কষ্টার্জিত টাকা ফিরে পেলে তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ থাকব।”

উল্লেখ্য, আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি মেঘালয়ে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। ৩ মার্চ ত্রিপুরা সহ মেঘালয়েরও নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ হবে। মেঘালয়ে বর্তমানে কংগ্রেস সরকার রয়েছে। ভারত জুড়ে গেরুয়া রঙের বাড়তে থাকা আধিপত্য কমাতে যেভাবেই হোক মেঘালয়ে ক্ষমতা হারানো চলবে না তা ভাল করেই জানেন রাহুল। সেই কারণেই এবার সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপিয়েছেন তিনি। নিরব মোদীর দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার ইস্যুকে হাতিয়ার করে নরেন্দ্র এবং নিরবের তুলনা করে রাহুল বলেন, ”নিরব মোদী ‘হিরে’ বিক্রি করতেন। তাঁর দাবি অনুসারে হিরেগুলি স্বপ্নখচিত। তাহলে বলাই চলে নিরব মোদী সরকারের লোকদের স্বপ্ন বিক্রি করেছিলেন, যা পেয়ে তারা চুপচাপ ঘুমিয়ে থাকেন এবং মানুষের কষ্টার্জিত টাকা নিয়ে মোদী দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান। একই ভাবে কয়েক বছর আগে আরেক মোদী (প্রধানমন্ত্রী) ভারতের মানুষদের ‘আচ্ছে দিন’-এর স্বপ্ন বিক্রি করেন। এছাড়াও প্রত্যেকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা, দু’কোটি কর্মসংস্থানেরও স্বপ্ন বিক্রি করেন তিনি।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here