বাড়ির বাথরুমে নাবালিকাকে ধর্ষণের জেরে কাঠগড়ায় প্রতিবেশী যুবক! চাঞ্চল্য বকুলতলায়

0
154
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, বারুইপুর: প্রতিদিন প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে ঘটনা। কিছু আসছে সংবাদমাধ্যমের নজরে, কিছু থেকে যাচ্ছে সকলের দৃষ্টির অগোচরে। তবুও কার্যত দেশজুড়েই বেড়ে চলেছে নাবালিকাদের প্রতি শারীরিক অত্যাচার বিশেষ করে ধর্ষণের ঘটনা। সেই তালিকা থেকে বাদ যাচ্ছে না পশ্চিমবঙ্গও। এ রাজ্যেও প্রতিদিন কোন না কোন প্রান্ত থেকে উঠে আসছে ধর্ষণ বা গণধর্ষণের ঘটনা। এর আবার একটা বড় অংশই দেখা যাচ্ছে ঘটনার শিকার হয়েছে যে সে নাবালিকা। বৃহস্পতিবার দক্ষিন ২৪ পরগনা জেলার বকুলতলা থানায় সেই এক নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল তারই এক প্রতিবেশী যুবকের বিরুদ্ধে।

জানা গিয়েছে, বকুলতলা থানার শাহজাদাপুর পঞ্চায়েতের বিজয়নগর গ্রামে ১২ বছরের নাবালিকাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে গিয়ে বাথরুমের মধ্যে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তারই ২৪ বছরের প্রতিবেশি আত্মীয় এক যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত প্রতিবেশি আত্মীয় মহাদেব হালদার পলাতক। ঘটনায় বকুলতলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে তার পরিবার। গ্রাম সুত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার দিন ওই নাবালিকা তাদের বাড়ির পাশে পুকুরের পাড়ে বসে ছিল। সেই সময় অভিযুক্ত যুবক মহাদেব হালদার তাকে খাবারের লোভ দেখিয়ে নিজেদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। কিন্তু সেই নাবালিকাকে কোন খাবার না দিয়ে তাকে বাথরুমের মধ্যে ঢুকিয়ে সেখানেই তাকে ধর্ষণ করতে শুরু করে। শারীরক যন্ত্রণা ও ভয়ে ওই নাবালিকা আর্তনাদ করতে শুরু করলে মেয়েটির বাড়ির লোক তা শুনতে পায়। তারা মহাদেবের বাড়তে আসতেই মহাদেব বাড়ি ছেড়ে পালায়। নাবালিকাকে রক্তাক্ত অবস্থায় সেখান থেকে উদ্ধার করে তার পরিবার দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়।

যদিও অভিযুক্ত যুবকের পরিবারের দাবি ধর্ষণের কোন ঘটনাই ঘটেনি। জমিজমা নিয়ে বিবাদের জেরে মহাদেবকে ফাঁসানো হয়েছে। বকুলতলা থানার পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, ওই নাবালিকার পরিবার মহাদেবের নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। সেই সঙ্গে নাবালিকার শারীরিক পরিক্ষার জন্য তাকে নিমপীঠ গ্রামীণ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেই সঙ্গে অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশিও শুরু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here