kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: চলতি বছরে বিহারে বিধানসভা ভোট৷ করোনা আবহে এবার সেই ভোটেরই নয়া গাইডলাইন তৈরি করে দিল নির্বাচন কমিশন৷ ইভএমে ভোট দিতে যাওয়ার আগে ভোটারদের দেওয়া হবে হ্যান্ড গ্লাফস৷ ভোটকর্মীরা ভোটারদের দেবেন ফেস মাস্ক ও স্যানিটাইজার৷ একইসঙ্গে যেসকল ভোটারদের সঙ্গে শিশু থাকবে সেই শিশুদেরকেও দেওয়া হবে ফেসিয়াল পিপিই কিট৷

নির্বাচন কমিশনের তথ্যানুযায়ী, ২০১৫ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বিহারে ভোটার সংখ্যা ছিল ৬ কোটি ২ লাখ ৫৩ হাজার ১৯৩৷ তবে এই ৫ বছরে ভোটারের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে আরও ১৫ লক্ষ ৩৫ হাজার ৭৬৭৷ বিহারে মোট ২৪৩টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে৷ নির্বাচন কমিশনের জানিয়েছে, ভোটাররা যেহেতু মাস্ক পড়ে থাকবে সেক্ষেত্রে ভোটকর্মীদের তাদের পরিচয় নিয়ে সন্দেহ হলে ভোটাররা মাস্ক খুলে তাদের মুখ দেখাবে৷

একইসঙ্গে পোলিং বুথগুলিতে থাকবে থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থাও৷ যার ফলে কারোর শরীরে তাপমাত্রা বেশি থাকলে তা তাকে করোনা আক্রান্ত সন্দেহ করা হলে তার বুথে ঢোকায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে৷ এই থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের জন্য নিয়োগ করা হবে ভোটকর্মী বা আশাকর্মীদের৷ এছাড়াও ভোটের একদিন আগে পোলিং বুথগুলি স্যানিটাইজ করা হবে পুরোপুরিভাবে, এমনটা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন৷ একইসঙ্গে সামাজীক দুরত্বের কথা মাথায় রেখেও বেশ কিছু ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে৷

যেমন এবারের নির্বাচনে প্রতিটি বুথে চালু করা হবে হেল্প ডেস্কের ব্যবস্থা৷ যাতে লাইনে না দাঁড়াতে হয় ভোটারদের৷ সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে মার্কার দিয়ে গোল গোল দাগ কেটে দেওয়া হবে৷ সেখানে দাঁড়িয়েই হেল্প ডেস্ক থেকে টোকেন সংগ্রহ করতে হবে ভোটারদের৷ এদিকে পোলিং এজেন্টদের মধ্যে যদি কেউ অসুস্থ হয়ে পড়ে বা শরীরের তাপমাত্রা বেশি থাকে সেক্ষেত্রে তার বদলে অন্য পোলিং এজেন্ট ঠিক করতে পারেন প্রিসাইডিং অফিসার৷

এদিকে যারা বিভিন্ন দলের যেই প্রতিনিধিরা ভোটে দাঁড়াবেন তারা অনলাইনে নমিনেশন ফাইল করতে পারবেন বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন৷ পাশাপাশি ভোটের প্রচার, মিটিং সব ক্ষেত্রেই নির্দিষ্ট স্বাস্থ্যবিধি মেনে ছাড় দেওয়া হয়েছে৷ অন্যদিকে ছাড়া কোভিড আক্রান্ত তাদের ভোট দেওয়ার জন্য নির্দিষ্ট বিধির কথা জানিয়েছে কমিশন৷ করোনা আক্রান্তদের ভোট নেওয়া হবে সবশেষে৷ তবে সেক্ষত্রে মানা হবে কড়া নিয়ম৷ বুথে উপস্থিত থাকবেন স্বাস্থ্যকর্মীরা৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here