STATE LOCKDOWN

মহানগর ডেস্ক: দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ক্রমেই মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। প্রথমে লকডাউনের পথে না হাঁটলেও একের পর এক রাজ্য করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের জন্য লকডাউনের পথ অবলম্বন করেছে। শুক্রবার সকালেই রাজস্থান রাজস্থান সরকার ১৪ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছে। এবার কর্ণাটক ও গোয়াও লকডাউনের পথে হাঁটল।

গোয়াতে করোনা পজিটিভিটির হার সব থেকে বেশি। গোয়াতে ১০০ জন করোনা পরীক্ষা করালে ৪১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসছে। এই পরিস্থিতিতে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত লকডাউনের ঘোষণা করেছে। এক বিবৃতিতে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছে ৯ মে থেকে ২৩ মে পর্যন্ত রাজ্যে কারফিউ জারি করা হল। এই পরিস্থিতিতে মুদির দোকান সকাল সাতটা থেকে বেলা একটা পর্যন্ত খোলা থাকবে। রেস্তোরাঁতে বসে খাওয়া যাবে না। রেস্তোরাঁ থেকে খাবার সকাল সাতটা থেকে সন্ধে সাতটা পর্যন্ত খাবার আনা যাবে। তবে গোয়ার করাফিউতে জরুরি পরিষেবাকে বাইরে রাখা হয়েছে।

কর্ণাটকে করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় কর্ণাটকে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গিয়েছেন ৩৪৬ জন। এই পরিস্থিতিতে কর্ণাটক সরকার রাজ্য জুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেছে। এক বিবৃতিতে কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী ১৪ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছে। ১০ মে থেকে ২৪ মে পর্যন্ত ঘোষণা করেছে লকডাউন। তবে জরুরি পরিষেবাকে লকডাউনের বাইরে রাখা হয়েছে। এই কদিন সমস্ত হোটেল, রেস্তোরাঁ, পাব, বার বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সকাল ছটা থেকে ১০ পর্যন্ত সমস্ত সবজি বাজার ও মাংসের দোকান খোলা রাখা হবে বলেও কর্ণাটক সরকারের তরফে জানানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here