assam goalpara kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ২০১৯ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে অসমের গোয়ালপাড়ায় ভারতের সবচেয়ে বড় ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরি হয়ে যাবে৷ এই বন্দি শিবির বানাতে খরচ পড়ছে ৪৬ কোটি টাকা৷ উল্লেখ্য এই গোয়ালপড়া ছাড়া কামরূপ, ডিমা, হাসাও, করিমগঞ্জ প্রভৃতি ১০ জায়গায় তিন বছরের মধ্যে ডিটেনশন শিবির নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷ এর জন্য মোট হাজার কোটি টাকা খরচ হবে৷ উল্লেখ্য অসমের নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা থেকে ১৯ লক্ষর নাম বাদ গেছে৷ এরা বিদেশি নাগরিক হিসাবে চিহ্ণিত৷এদের মধ্যে আছেন সেনা, প্রাক্তন সেনা এমনকী ইসরোর বৈজ্ঞানিকও৷ এরা সবাই এখন ডি ভোটার৷ এদের সাবইকে গ্রেফতারের নির্দেশ ইতিমদ্যেই দিয়েছে অসম প্রশাসন৷ তবে এত লোক রাকার জন্য যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে তৈরি হচ্ছে ্সমের ডিটেনশন শিবিরগুলি৷ এর মধ্যে সবচেয়ে বড় গোয়ালপাড়া জেলার মাটিয়ার শিবিরটি৷ শুধু এই শিবিরটি বানাতে খরচ হচ্ছে ৪৬ কোটি৷ এখানে ৩৫ হাজার ব্নদির থাকার ব্যবস্থা করা হচ্ছে৷ তবে অন্য শিবিরগুলিতে হাজার জনের বেশি বন্দি থাকতে পারবে না৷
এই শিবির তৈরির দায়িত্বে আছেন রাজ্যের পূর্ত দফতেরর জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার রবীন দাস৷সাতটা ফুটবল খেলার মাঠের সমান হতে চলেছে এই গোয়ালপাড়ার মাতিয়ার ডিটেনশন শিবির৷ এর মধ্যে থাকবে একটা ছোটোখাটো শহর৷ যেখানে বিদ্যালয় থেকে হাসপাতাল সব কিছুই থাকবে৷ ২ লক্ষ ৮৮ হাজার স্কোয়ারফুট এই জায়গায় থাকছে ৪ তলার ১৫ টি বাড়ি৷ এর মধ্যে ১৩ টি বাড়িতে পুরুষ ও দুটিতে শুধুমাত্র মহিলা বন্দিরা থাকবে৷ চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের থাকার জন্য ৪টি ও নিরাপত্তারক্ষিদের জন্য দুটি বারাক তৈরি হবে৷ থাকবে ওয়াচ টাওয়ার৷ এর দেওয়ালের ভেতরে ছয় ইঞ্চি ও বাইরে ২০ ইঞ্চির গাঁথনি থাকবে৷ ৫০ হাজার লিটারের জলের ট্যাঙ্ক থাকবে৷

এই বিশাল কর্মযজ্ঞের দায়িত্বপ্রাপ্ত ইঞ্জিনিয়ার রবীন দাস অবশ্য সময়মতো নির্মাণ সম্পর্কে আশার বাণী শোনাতে পারলেন না৷ তাঁর কথায়, এইখানে জিনিসপত্র কাঠের সাঁকো দিয়ে নিয়ে আসা যাচ্ছে না৷ এজন্য জঙ্গল সাফ করে রাস্তা তৈরি করতে হবে৷ তা না হলে সঠিক সময়ে কাজ শেষ করা যাবে না৷ উল্লেখ্য চূড়ান্ত নাগরিকপঞ্জির তালিকা থেকে অসমে ১৯ লক্ষের নাম বাদ পড়েছে৷   ইতিমধ্যে এনআরসি কর্তৃপক্ষ ১ লক্ষ ১৭ হাজার ১৬৪ জনকে বিদেশি নাগরিক বলে ঘোষণা করেছে৷ এদের মধ্যে অধিকাংশ এখন বন্দি শিবিরে আছে৷ বেশ কিছু লোক পলাতক৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here