মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাস অতিমারীতে তছনছ হয়ে যাওয়া অর্থনীতিতে গতি আনতে সরকারের হাতে থাকা বিভিন্ন সংস্থার শেয়ার বিক্রির কথা ভাবা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে সূত্র মারফত। প্রাথমিক ভাবে ২০ হাজার কোটি টাকা তোলার জন্য সরকার পৃথিবীর বৃহত্তম কয়লা উৎপাদক সংস্থার ও একটি ব্যাঙ্কের শেয়ার বিক্রি করার কথা বিবেচনা করছে বলে জানিয়েছে পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক সরকারি আধিকারিক।

শেয়ার বিক্রি অবশ্য নির্ভর করছে বাজারের মনোভাবের ওপর। কোল ইন্ডিয়ার ক্ষেত্রে শেয়ারের মূল্য যদি আকর্ষণীয় না হয় তাহলে কোল ইন্ডিয়াই সরকারের কাছ থেকে শেয়ার কিনে নেবে।  অর্থ মন্ত্রকের ঘরোয়া বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে বলে সূত্রের খবর। সংবাদ মাধ্যমের তরফে অর্থমন্ত্রকের মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাঁর ফোন বেজে যাওয়ায় কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া সম্ভব হয়নি।

প্রধানমন্ত্রীর বাজেট লক্ষ্য সবই এলোমেলো হয়ে গিয়েছে অতিমারীর কারণে। সংক্রমণ ঠেকাতে দীর্ঘ লকডাউনের মধ্যে দিয়ে যেতে হওয়াতে থমকে যাওয়া আর্থনীতিকে সচল করার জন্য একাধিক জনকল্যাণমুখী প্রকল্পের কথা ঘোষণা করতে হয়। ফেব্রুয়ারি মাসেই প্রধানমন্ত্রী বাজেট ঘাটতি জিডিপি’র ৩.৫ শতাংশের মধ্যে আটকে রাখতে ২.১ লক্ষ কোটি টাকার সরকারি সম্পত্তি বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

আন্তর্জাতিক উড়ান বাতিল, তেলের দামের অস্বাভাবিক হ্রাস এয়ার ইন্ডিয়া ও ভারত পেট্রোলিয়ামের বিক্রির পরিকল্পনাকে বানচাল করে দেয়। অথচ চলতি বছরের ৩১ মার্চ শেষ হওয়া অর্থ বর্ষে রাষ্ট্রায়ত্ত সম্পত্তি বিক্রি করার লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছিল তার আগের আর্থিক বর্ষের থেকে দ্বিগুণেরও বেশি। এলআইসি গত বছর আইডিবিআই ব্যাঙ্কের ৫১ শতাংশ শেয়ার কিনে নিয়েছে। সরকারের হাতে এখন ওই ব্যাঙ্কের ৪৭ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। কোল ইন্ডিয়ার ৬৬ শতাংশ শেয়ারের মালিক সরকার। ২০১৫ সালে মাত্র ১০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করে সরকার ২২,৫০০ কোটি টাকা আয় করেছিল।

ব্লুমবার্গের অর্থনীতি বিশেষজ্ঞদের পূর্বাভাস অনুযায়ী এই বছর রাজস্ব ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়াবে জিডিপি’র ৭ শতাংশ। আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডারের হিসেব অনুযায়ী আগামী বছর সরকারের দেশের অভ্যন্তরীণ ঋণের পরিমাণ দাঁড়াবে ৮৫.৭ শতাংশ বর্তমান বছরের থেকে যা ১৫.৭ শতাংশ বেশি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here