মহানগর ওয়েবডেস্ক: প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখাকে কেন্দ্র করে বিগত কয়েক মাসে চিনের সঙ্গে ভারতের সংঘাত চরম আকার ধারণ করেছে। এহেন পরিস্থিতির মাঝেই সম্প্রতি প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখাকে কেন্দ্র করে চিনের দাবি পুরোপুরি খারিজ করল ভারত। এদিন বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র নিজের বয়ানে জানালেন, ভারত কখনই ১৯৫৯ সালের চিনের এক তরফা প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখাকে মেনে নেয়নি। ১৯৯৩ সালের পর চিনের সঙ্গে এমন একাধিক চুক্তি হয়েছে যেখানে সীমান্তে শান্তি বজায় রাখতে দুপক্ষের পদক্ষেপের কথা বলা হয়েছে।

দাবি করা হয়েছে ২০০৩ সালের পর দুই দেশের তরফেই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা নির্ধারণের জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছিল। তবে চিন আগ্রহ না দেখানোর কারণে তা বন্ধ হয়ে যায়। আগের সম্মতি লংঘন করে এখন চিন দাবি করছেন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা একটাই। গত কয়েক মাস ধরেই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় পরিবর্তন আনার প্রচেষ্টা চালিয়ে একতরফা ভাবে কাজ করে চলেছে চিন। আর এই ঘটনাকে কোনোভাবেই মানতে নারাজ ভারত। শুধু তাই নয় সরকারিভাবে জানা গেছে গত সেপ্টেম্বর মাসে ভারত-চিন বিদেশ মন্ত্রকের বৈঠকে চীন নিজেদের চুক্তি মানতে সম্মত হয়। ভারতের অনুমান ছিল চিন চুক্তি এবং সম্মতি কথা স্মরণে রাখবে। তবে এরপরই ফের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় একতরফাভাবে বদল করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে চিনের প্রশাসন।

এহেন পরিস্থিতিতে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছে ভারতীয় সেনা। আসন্ন শীতকালীন পরিস্থিতিকে গুরুত্ব দিয়ে পূর্ব লাদাখের উচ্চতর এলাকাগুলিতে ট্যাংক, প্রচুর অস্ত্রশস্ত্র, গুলিগালা ও দীর্ঘদিন থাকার মতো রসদ মোতায়েন করা হয়েছে। আগামী চার মাস ভয়াবহ শীত শুরু হবে লাদাখে সেই পরিস্থিতিকে গুরুত্ব দিয়ে চিনের কোনও রকম অপচেষ্টা বানচাল করতে সব রকম ভাবে প্রস্তুতি শুরু করেছে ভারত। ১৬ হাজার ফুট উচ্চতায় বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু যুদ্ধক্ষেত্রে যাতে কোনো রকম সমস্যায় সেনাকে না পড়তে হয় তার জন্য টি-৯০ এবং টি-৭২ ট্যাঙ্ক পাঠানো হয়েছে। লাদাখে আসন্ন শীতের জন্য পুরোদমে প্রস্তুত রয়েছে ভারতীয় সেনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here