kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: এনডিএ জোট সংখ্যার বিচারে ১৬১ হলেও সপ্তাহ দুয়েক হল মহারাষ্ট্রে কিছুতেই সরকার গড়তে পারছে না বিজেপি৷সৌজন্যে শিবসেনার গোঁ৷ সম্প্রতি সরকারের মেয়াদ শেষ হওয়ায় মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ৷ তবু তাঁকে সরকার গঠন পর্যন্ত কেয়ারটেকার সরাকেরর প্রধান হিসাবে রেখে দিলেন মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল কোশিয়ারি৷ শনিবার তাঁকে ফের সরকার গড়ার আমন্ত্রণ জানালেন রাজ্যপাল৷ রাজনীতির পাটিগণিতে এনডিএ জোট ২৮৮ সদস্যের মহারাষ্ট্র বিধানসভায় মোট ১৬১টি আসন পেয়েছে ৷ এর মধ্যে ১০৫ টি আসন নিয়ে বিজেপি এবং ৫৬ টি আসনে শিবসেনা সুস্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে।তবে কেন এতদিনেও সরকার গড়তে পারছে না?

চলতি বছরের শুরুর দিকে, মে মাসে লোকসভা নির্বাচনের আগে অমিত শাহের সঙ্গে আলোচনায় ‘৫০:৫০’ সমীকরণে খেলতে চেয়েছিল শিবসেনা। সমান ক্ষমতার অংশীদার হওয়ার দাবিতে এখনও স্থির রয়েছে তাঁরা। উদ্ধেবর দলের মতে, জোটের পরিকল্পনা ছিল প্রতিটি দলই মুখ্যমন্ত্রীদের জন্য পাঁচ বছরের মেয়াদকে নিজেদের মধ্যে সমানভাবে ভাগ করে নেবে। তাদের সাফ দাবি আড়াই বছর মুখ্যমন্ত্রীর পদ শিবসেনাকে ছেড়ে দিতেই হবে বিজেপিকে৷ স্বাভাবিকভাবে পদ্ম শিবির এই আবদার মানতে নারাজ৷ আর এই দাবি না মানলে জোট শরিককে সমর্থনও করবে না ঠাকরের দল৷

রাজ্যপালের অফিসের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ‘মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল শ্রী ভগত সিং কোশিয়ারি আজ একক বৃহত্তম দল ভারতীয় জনতা পার্টির নির্বাচিত সদস্যদের নেতা শ্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশকে মহারাষ্ট্রে তাঁর দলের সরকার গঠনের ইচ্ছা এবং দক্ষতার প্রকাশ করতে বলেছেন। মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচন ২১ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং ২৪ অক্টোবর ফলাফল ঘোষণা হয়েছিল। তবে, ১৫ দিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও কোনও দল বা জোটই সরকার গঠন করতে এগিয়ে আসেনি।’ শিবসেনা এখনও তাদের অবস্থানে অনড় রয়েছে৷

২০১৪ সালে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই ফড়নবিশের শিবসেনার বিরুদ্ধে কড়া বক্তব্য দিয়ে এসেছেন। তিনি আরও প্রশ্ন তোলেন, যে শিবসেনা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে লাগাতার আক্রমণ করে গিয়েছে তাঁরা একসঙ্গে জোট চালিয়ে যাওয়ার আদৌ উপযুক্ত কিনা? “বিশেষত প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তাদের বক্তব্য দেখে আমরা হতবাক ও আহত হয়েছি। বিজেপির কেউই কখনও বাল ঠাকরেকে (সেনার প্রতিষ্ঠাতা) বা উদ্ধব ঠাকরেকে লক্ষ্য করে আক্রমণ করেনি। কিন্তু সেনা মোদিজিকে যে নিরলসভাবে আক্রমণ করেছে, অমনটা আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বীরাও করেন নি। আমরা এটা মেনে নিতে পারি না। মনে হচ্ছে শিবসেনা জোট চালিয়ে যেতে আগ্রহী নয়,’ বলেন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। বিজেপি এবং শিবসেনা গত মাসে মহারাষ্ট্র নির্বাচনে সুস্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করার কয়েক ঘন্টা পরে শুরু হয়ে যায় সরকার গড়া নিয়ে মতবিরোধ। উল্লেখ্য এদিনো সামনাতে শিবসেনা বিজেপিকে হিটলারের সঙ্গে তুলনা করেছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here