news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রাজ্য এবং রাজ্যপাল সংঘাত চরম থেকে চরমতম পর্যায় পৌঁছে যাচ্ছে এবার। রাজ্যপালের বিভিন্ন অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল সরাসরি তাঁকে চিঠি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাঁচ পাতার চিঠিতে উল্লেখ করেছিলেন, তিনি নির্বাচিত এবং রাজ্যপাল মনোনীত। তার উত্তরে কড়া ভাষায় ইতিমধ্যেই আক্রমণ চালিয়েছেন রাজ্যপালও। মমতাকে বলেছেন, তিনি সাংবিধানিকভাবে পুরোপুরি ব্যর্থ। এবার আরো কড়া ভাষায় বেনজির আক্রমণ করলেন জগদীপ ধনকড়।

মুখ্যমন্ত্রীর পাঁচ পাতার চিঠির বিপক্ষে ১৪ পাতার চিঠি লিখে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি। এবার তাঁর দাবি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাস্তায় মাইক এবং ঝাঁটা হাতে নাটক করছেন, এগুলো এখন করার সময় নয়। একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর তোষণ নীতি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা করলেন রাজ্যপাল। তাঁর কথায়, মুখ্যমন্ত্রীর তোষণ নীতি এতটাই দৃষ্টিকটু নিজামুদ্দিন নিয়ে সাংবাদিক প্রশ্ন করলে তিনি উত্তর দেন, ‘সাম্প্রদায়িক প্রশ্ন করবেন না’। এই প্রসঙ্গে তিনি মমতাকে বিবেকের কথা শুনতে এবং রাষ্ট্রীয় বিধি মেনে চলতে পরামর্শ দিয়েছেন।

এখানেই না থেমে রাজ্যপাল আরো কড়া সমালোচনা করে বলেন, মমতার উচিত আয়নার সামনে দাঁড়ানো। যদি কারও একটু সাহস থাকে তাঁর মমতার সামনে আয়না ধরা উচিত। এতদিন রাজ্য এবং রাজ্যপাল সংঘাতে এই ধরনের ভাষা ব্যবহার করতে দেখা যায়নি কাউকেই। এবার সংঘাত যে চরমতম জায়গায় পৌঁছেছে তা প্রমাণ করলেন খোদ রাজ্যপাল। একজন মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে এই ধরনের ভাষা যে সত্যিই অবাক করা তা বলাই বাহুল্য।

প্রসঙ্গত, এর আগেই চিঠি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী সমালোচনা করে রাজ্যপাল বলেছিলেন, মমতা সাংবিধানিকভাবে পুরোপুরি ব্যর্থ, তিনি সংবিধানকে অবজ্ঞা করেছেন। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী তার চিঠিতে লিখেছিলেন, তিনি নির্বাচিত এবং রাজ্যপাল মনোনীত, এই কথা মাথায় রাখতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here