Parul

মহানগর ডেস্ক: বুধবার নবান্নে বৈঠক সারার পর আচমকাই গাড়ির চাকা ঘুরিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পরই আচমকা আজ দিল্লি সফর করলেন রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার। শনিবার সকালের বিমানেই দিল্লি উড়ে গেলেন তিনি। যদিও তার সফর সূচি নিয়ে এখনও অজানা সকলেই।

ads

এর আগে দেখা গিয়েছে, নিজের প্রত্যেকটি কর্মসূচি নিয়ে টুইটারে বিবৃতি দিয়েছেন রাজ্যপাল। কিন্তু শনিবারের দিল্লি সফর নিয়ে একটিও শব্দ খরচ করেন নি তিনি। শনিবারে বিমানে ওঠার আগেই টুইটারে দুটি টুইট করেছেন রাজ্যপাল। যেখানে গীতার শ্লোক উল্লেখ্য করেছেন। সেই সঙ্গে গীতার শ্লোক এর অনুবাদ করেছেন। যেখানে লেখা রয়েছে, ‘নিজের কর্তব্য করে যাও, কিন্তু ফলের আশা করো না। যখন কাজ করছ তখন অহংকার ত্যাগ করো’।

 

কোন কর্তব্য পালনের কথা ইঙ্গিত করেছেন রাজ্যপাল। যা নিয়ে ইতিমধ্যে জল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে। এছাড়াও রাজনৈতিক মহলে জল্পনা শুরু হয়েছে রাজ্যপালের আচমকা দিল্লি সফর নিয়ে। এছাড়াও আরও একটি টুইটে গীতার প্রশংসা করেছেন। যেখানে রাজ্যপাল লিখেছেন, আমাদের সময় ভগবদ্গীতা হলো একটি কালোত্তীর্ণ পথপ্রদর্শক। একই সঙ্গে তিনি উপলব্ধি করেছেন এই চিন্তা-ভাবনার শান্তি ও সম্প্রীতির জন্ম দেবে। গীতা কঠিন সময়ে নিষ্ক্রিয় থাকা কোন অজুহাত থাকতে পারে না। এটা মানবতা ও সভ্যতা কে কুরে কুরে খেয়ে ফেলে। গীতাকে ধর্ম জাতির ঊর্ধ্বে বলে ব্যাখ্যা করেছেন রাজ্যপাল।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী পদে আসীন হওয়ার পরই মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন রাজ্যপাল। এছাড়াও ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে বারবার রাজ্য ও রাজ্যপালের সংঘাত বেড়েই চলেছে। তারই মধ্যে আচমকা বুধবার রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক সকলকে প্রশ্নের মুখে ফেলেছিল। বুধবার রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রীর প্রায় দুই ঘণ্টার বৈঠক হয়। কিন্তু এই দু’ঘণ্টার বৈঠকে কি আলোচনা হয় তা এখনো স্পষ্ট নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here