নিজস্ব প্রতিনিধি: হাতে আর মাত্র কয়েকটা মাস, তারপরেই একুশের শুরুতেই পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভোট। এদিকে ভোট যত এগিয়ে আসছে ততোই বাড়ছে রাজনৈতিক কাদা ছোড়াছুড়ি। আর এরই মাঝে রাজভবন- নবান্ন তরজা তুঙ্গে। সোমবার ফের একবার রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। এদিন এবিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিদ্ধ করে টুইট করেন রাজ্যপাল।

এদিন টুইটে রাজ্যপাল লেখেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর পুলিশ ও প্রশাসনিক কর্তাদের একাংশ সরীসৃপে পরিণত হয়েছেন। ক্ষমতার অলিন্দে শুধু ম্যাপ-র শুধু অবাধ যাতায়াত। সরকার-বহির্ভূত শক্তি প্রশাসনকে গ্রাস করেছে। যা অসাংবিধানিক ও অপরাধমূলক। একমাত্র সংবিধান মেনে প্রশাসন পরিচালনাই যথার্থ এবং মুখ্যমন্ত্রী মানবাধিকারের সবচেয়ে বড় বিপদঘণ্টা।’

রাজ্য সরকারের উদ্দেশ্যে আরো অভিযোগ এনে তিনি লিখেন, ‘শাসক দলের হার্মাদদের দিয়ে বিরোধীদের উপর জুলুমবাজি এদের প্রধান কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমনকী সাম্প্রদায়িক উত্তেজনার সময়েও এক চোখো হয়ে বিশেষ শ্রেণীর উপর ব্যবস্থা নেওয়া, অন্য অংশকে রক্ষা করার ঘটনা অনভিপ্রেত এবং গ্রহণীয় নয়। রাজ্য পুলিশের ডিজি উটপাখির মতো বালিতে মাথা গুঁজে আছেন। শোচনীয় আইন-শৃঙ্খলা নিয়ে তাঁর ডোন্ট কেয়ার ভাব দেখে আমি হতবাক। পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ আইনে বর্ণিত পথই কঠোরভাবে অনুসরণ করে। রাজ্য তো জঙ্গি, অপরাধী, বেআইনি বোমা তৈরির স্বর্গোদ্যান।’

তবে এই প্রথম নয়। এর আগেও রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে স্বজনপোষণের অভিযোগ এনেছিলেন রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকর। একইসাথে এ রাজ্যের গুনী আমলারা রাজনীতির শিকার বলেও অভিযোগ করেছিলেন তিনি। এমনকি পুলিশকর্মীদের সঙ্গেও এই একই কাজ হচ্ছে বলে অভিযোগ আনেন রাজ্যপাল।

উল্লেখ্য, মমতা—ধনকরের এই সম্পর্ক বর্তমানে সর্বজনবিদিত। রাজ্যপালের পদে আসীন হওয়ার পর থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কখনো প্রত্যক্ষ কখনো বা পরোক্ষভাবে বিতর্কে জড়িয়েছেন রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকর। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রায় প্রত্যেকদিনই রাজ্য- রাজ্যপালের সংঘাত শিরোনামে উঠেছে। সেই সংঘাতেই এবার আরেকটি নতুন অধ্যায় যুক্ত হলো বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here