নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাল: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ঘাটাল মহকুমার দাসপুর থানার নাড়াজোল এলাকার বালিপোতা গ্রামে এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনার সাক্ষী হয়ে রইল এলাকাবাসী। আদরের নাতনিকে বাঁচাতে গিয়ে আগুনে পুড়ে মৃত্যু হল ঠাকুরমার। সেই সঙ্গে অগ্নিদগ্ধ হলেন সেই পরিবারেরই আরও ৩ জন। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার গভীর রাত্রে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মৃতার নাম ললিতা সিং( ৫৫)। স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, লক্ষ্য সিং তার স্ত্রী ললিতা নাতি নাতনিকে নিয়ে একটি ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। অন্য একটি ঘরে ছিল তার ছেলে ও ছেলের বউ। একটি বাড়ির দুটি ঘরে শীতের রাতে সবাই যখন গভীর ঘুমে, তখন হঠাতই ঘুম ভেঙে তারা দেখেন বাড়িতে আগুন জ্বলছে দাউ দাউ করে।

প্রাণ ভয়ে সকলেই তখন বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসে, কিন্তু ৪ বছরের নাতনি শ্রাবণীকে তৎক্ষণাৎ দেখতে না পেয়ে সন্দেহবশত, আগুনকে তোয়াক্কা না করেই বাড়ির ভেতরে ফের ঢুকে পড়েন ললিতা দেবী। আর সেই আগুনই গ্রাস করে নিল ঠাকুরমা ললিতাকে। বাড়ির মধ্যে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গে জলন্ত আগুনের চাঁই তাকে নিয়ে চাপা পড়ে যায়। অথচ যে নাতনির খোঁজে ললিতা দেবী ওই আগুনের মধ্যে ঢুকে পড়েন, সেই নাতনি আগেই বেরিয়ে চলে এসেছিল বাবা-মায়ের কাছে। নাতনিকে খুঁজতে যাওয়া বৃদ্ধাকে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হলেও ততক্ষণে তিনি মারা যান। ললিতা দেবীকে উদ্ধার করতে গিয়ে অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন বাড়ির অন্য তিন সদস্যও। যদিও পাড়া প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় আগুন পরে নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের পাঠিয়েছে। পুরো ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here