kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঝালদা: লোকসভা ভোটের আগে পুরুলিয়ার ঝালদা শহরে দাবি উঠছে বাসস্ট্যান্ডের। ভোটে যেই জিতে আসুক তার কাছে এটাই ঝালদা বাসির আবেদন। ঝালদা শহরে বাসস্টান্ড না থাকায় সমস্যা প্রকট হয়ে দেখা দিয়েছে। সাধারন শহর থেকে মহকুমা শহর হওয়ার পর থেকে শহরে নিত্যদিনের হিসাবে বেড়েছে যাত্রী সংখ্যা। বেড়েছে বাসের সংখ্যাও। কিন্তু এখনও স্থায়ী কোনও বাসস্ট্যান্ড নেই গ্রীন সিটির তকমা পাওয়া ঝালদা শহরের। বাসস্ট্যান্ড না থাকায় রাঁচি-পুরুলিয়া মুখ্য রাস্তার উপরেই বাস দাঁড়িয়ে যাত্রী ওঠা নামা থেকে পন্য সামগ্রী নামানোর কাজ চলে। তার জেরে নিত্যদিনই তৈরি হচ্ছে যানজট। সেই যানজটের সমস্যার সম্মুখীন স্কুলের ছাত্রছাত্রী থেকে সাধারণ মানুষ সকলেই। বাদ যাচ্ছে না জরুরীকালীন অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবাও।

শুধু ঝালদা শহরবাসীই নয়, পাশের রাজ্য ঝাড়খণ্ডের রাঁচি থেকে মন্ত্রীদের আনাগোনা যেমন রয়েছে এই শহরে, সেরকম চিকিৎসার জন্য এখানকার অনেক বাসিন্দাকেই রাঁচি যেতে হয়। এর ফলে অত্যন্ত ব্যাস্ত সময়ে সকলকেই পড়তে হচ্ছে সমস্যায়। এখন যানজট একপ্রকার ঝালদাবাসীর নিত্য দিনের সঙ্গী হয়ে দাঁড়িয়েছে। অথচ প্ৰশাসন নির্বিকার। এলাকাবাসি সুমন চক্রবর্তী, বিশ্বজিৎ চ্যাটার্জি, সুভাষ লাহিড়ী, সাগর নাগরা চাইছেন অবিলম্বে নির্দিষ্ট একটি বাসস্ট্যান্ড বা বাইপাস রাস্তা তৈরি হউক। এই রাস্তায় প্রতিদিন প্রায় ৭০-৮০টি বাস চলাচল করে। তার পর দিন দিন বাড়ছে লাগাম ছাড়া টোটোর সংখ্যা। তাই প্রশ্ন উঠছে প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও।

 

কেন এতদিন পরেও একটা বাসস্ট্যান্ড তৈরি হল না ঝালদায়? কোথায় রয়েছে খামতি? প্রশ্ন এলাকার মানুষের।
এবিষয়ে ঝালদা পুরসভার উপ-পুরপ্রধান কাঞ্চন পাঠক বলেন, ‘এ নিয়ে আমরা পরিকল্পনা নিয়েছি। উর্ধতন কর্তৃপক্ষকেও জানানো হয়েছে। সম্ভবত ভোটের পরেই পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এর আগে টাকাও মঞ্জুর হয়েছিল। কিছু ত্রুটি থাকায় করে উঠতে পারেনি বিগত বোর্ড। তাই জোর কদমে চেষ্টা চলছে হাটতলায় বাসস্ট্যান্ড তৈরির প্রক্রিয়ায়। সব ঠিকঠাক থাকলে লোকসভা ভোটের পরেই তৈরি হয়ে যাবে বাসস্ট্যান্ড।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here