নিজস্ব প্রতিবেদক, চন্দ্রকোনা: মেদিনীপুর বনদফতরের তরফে আলোচনায় বসে হাতি তাড়ানোর একাধিক কৌশল বিষয়ে আলোচনা করা হলেও পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম সংলগ্ন জঙ্গলমহলে কমছেনা হাতির তাণ্ডব। জঙ্গলমহলের বিভিন্ন জঙ্গলগুলিতে হাতির তাণ্ডব তো রয়েইছে, পাশাপাশি রেসিডেন্সিয়াল ও দলবিচ্ছিন্ন হাতির তান্ডবে নাজেহাল জঙ্গলমহলের বাইরের এলাকার বাসিন্দারাও ৷ রবিবার রাতে চন্দ্রকোনা টাউনের পাশপাশি গ্রামে তাণ্ডব চালালো দুটি বিচ্ছিন্ন হাতির দল৷ এদিন গজরাজের কাণ্ড দেখে চক্ষু চড়কগাছ এলাকার মানুষের। তবে আতঙ্কও পিছু ছাড়ছেনা তাদের। এদিন গ্রামে ঢুকে বাড়িঘর ভাঙ্গচুর করেই শান্ত থাকেন তারা, দোকানে ঢুকে ফ্রিজ ভেঙ্গে ফল বের করে খেয়েছে।

দামাল হাতিদের তাণ্ডব চালাতে দেখেও কেউ ভাঙচুর রুখতে ঘর থেকে বেরোতে পারেন নি। রবিবার রাত বারোটা নাগাদ পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনা টাউনের ঘোষখিরা, শিরসা সহ একাধিক এলাকায় তাণ্ডব চালায় হাতির দলটি। বেশকিছু দিন ধরে চন্দ্রকোনা টাউনের ধামকুড়া জঙ্গলে দলছুট দুটি দাঁতাল হাতির দল তাণ্ডব চালাচ্ছে। আলু ও সব্জির জমি গুলি নষ্ট করার পর লোকালয়ে খাবারের খোঁজে লোকালয়ে ঢুকে পড়ছে তারা ৷ মাঠের জমিতে ফসল খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সাবমার্সিবল ও পাম্প হাউসগুলিও ভেঙ্গে নষ্ট করছে হাতির পাল ৷

রবিবার রাত বারোটা নাগাদ শিরসা গ্রামের অঙ্গনওয়াড়ী কেন্দ্র ভেঙে চাল খায় দুটি হাতি ৷ পরে পাশের কয়েকটি বাড়িতেও হামলা চালায় খাবারের খোঁজে ৷ শেষমেষ একটি বড় মুদির দোকানে লোহার দরজা ভেঙে হাতির দলটি তাণ্ডব চালায়। দোকানের ভেতরে মুদির সামগ্রী ছড়িয়ে খায় তারা ৷ পরে দোকানে রাখা চালু থাকা ফ্রীজ ভেঙে উল্টে ভেতরে থাকা ফল ও অন্যান্য জিনিস খায় ৷ দোকানদার জানায়, ওই ফ্রিজে ছিল বিভিন্ন ফল ৷ সেই ফলগুলি সব বের করে খেয়েছে হাতিরা ৷ দোকানের বাকি জিনিসপত্রও তচনচ করে তারা। বনদফতর অবশ্য ক্ষয়ক্ষতির হিসেব করে ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করছে ৷ সেই সঙ্গে হাতিগুলিকে তাড়াতে উদ্যোগ নিয়েছে ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here