kolkata bengali news

ডেস্ক: গত পাঁচবছরে দেশের অন্যান্য প্রদেশের সাংসদদের তুলনায় গুজরাতের সাংসদরা সবচেয়ে শাঁসালো। এক সাম্প্রতিক সমীক্ষায় এমনই অবাক করা তথ্য সামনে এসেছে।

সমীক্ষা অনুসারে, দেশের অন্য প্রদেশের তুলনায় গুজরাতের সাংসদরা প্রভূত সম্পত্তির অধিকারী। অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্রেটিক রিফর্মস সাংসদদের ঘোষণাপত্র বিশ্লেষণ করে এই তথ্য তুলে এনেছে। জানা গিয়েছে, দেশের মোট ৫২১ জন সাংসদের শপথপত্র দেওয়া বয়ান অনুযায়ী ৪৩০ জন সাংসদ কোটিপতি। শতাংশের বিচারে ৮৩ শতাংশ সাংসদ টাকার পাহাড়ে বসে রয়েছেন। মজার বিষয়, এই ৪৩০ জন সাংসদের মধ্যে ২২৭ জনই বিজেপির। আর বাকি ‘ক্রোড়পতি’দের মধ্যে ৩৭ জন কংগ্রেসের সাংসদ রয়েছেন। ২৯ জন সাংসদ অন্যান্য রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি। এই ধনপতি সাংসদদের বার্ষিক আয় গড়ে ৩০.২২ লক্ষ টাকা। সেখানে গুজরাতের সাংসদদের বার্ষিক গড় আয় ৫৯.৫ লক্ষ টাকা। দেখা যাচ্ছে, বিত্তবান সাংসদদের দীর্ঘ তালিকায় চণ্ডীগড়, অন্ধ্রপ্রদেশ এবং ওড়িশার পরেই রয়েছেন গুজরাতের সাংসদরা।

 

কয়েকজন সাংসদ আবার নিজেদের আয়ের পরিমাণ প্রকাশ্যে আনেননি। এদের মধ্যে গুজরাতের সাংসদরাও রয়েছেন। যেমন জুনাগড়ের সাংসদ রাজেশ চুডাসামা এবং সাবারকান্ঠার দীপসিং রাঠোর নিজেদের আয় গোপন রেখেছেন। অবাক করার মতো তথ্য, প্রবীণ বিজেপি সাংসদ ‘লৌহমানব’ লালকৃষ্ণ আডবাণীর সম্পত্তির পরিমাণ বেড়েছে। ২০০৯ সালে গান্ধীনগরের সাংসদ আডবাণীর সম্পদের পরিমাণ যেখানে ৩.৫৫ কোটি টাকা ছিল, সেখানে ২০১৪ সালে এসে সম্পদের পরিমাণ বেড়ে হয়েছে ৭.৫৯ কোটি টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here