মহানগর ওয়েবডেস্ক: নেটফ্লিক্সে মুক্তির পর থেকেই চর্চায় করণ জোহর প্রযোজিত ‘গুঞ্জন সাক্সেনা : দ্যা কার্গিল গার্ল’। মুক্তির দিনই সেন্সর বোর্ডকে কড়া চিঠি দেয় ভারতীয় বায়ুসেনা। তাদের দাবি, ছবিতে অযৌক্তিকভাবে ভারতীয় বায়ুসেনার চরিত্রের নেতিবাচক দিক তুলে ধরা হয়েছে। সেই মর্মে করণ জোহর ও নেটফ্লিক্সে কেও ওই একই চিঠি দিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনা।

এই সমস্ত বিতর্কের মাঝে এবার মুখ খুললেন খোদ গুঞ্জন সাক্সেনা। এদিন তিনি বিতর্কের মাঝে না গিয়ে সহজ ভাষায় বিষয় টি বোঝানোর চেষ্টা করেছেন। এক সাক্ষাৎকারে বায়ুসেনার প্রাক্তন এই পাইলট জানিয়েছেন, ‘ এই সিনেমাটির মূল কেন্দ্রবিন্দুই হল ভারতীয় বায়ুসেনা। আমি যা কিছু অসাধারণ কাজ করেছি তা ভারতীয় বায়ুসেনার কঠোর ট্রেনিং ও আদর্শের জন্যই সম্ভব হয়েছে।’
তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘ অবশ্যই বাণিজ্যিক খাতিরেই সিনেমায় একটু ক্রিয়েটিভলি আমার জীবনকে তুলে ধরা হয়েছে। কিন্তু এই সিনেমাতেও এটা দেখানো হয়নি যে আমি খুব সহজেই সব সুযোগ পেয়েছি, তাই এটা অস্বীকার করার কোনও জায়গাই নেই।’

দুদিন আগেই চিঠিতে বায়ুসেনার তরফে জানানো হয়, ‘ ছবিতে ভারতীয় বায়ুসেনার প্রাক্তন ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট গুঞ্জন সাক্সেনা র চরিত্রকে গুরুত্ব দিতে গিয়ে, বায়ুসেনার প্রতি অসম্মান করা হয়েছে। ‘ যদিও এই বক্তব্যে একমত হননি গুঞ্জন। তিনি এও বলেছেন, ‘ শেষ ২০ বছরে ভারতীয় বায়ুসেনার মহিলার সংখ্যা অনেকটাই বেড়েছে। এর থেকেই প্রমান হয় ভারতীয় বায়ুসেনা কতটা আধুনিক মনস্ক এবং নতুন কোনও পরিবর্তনকে কত সহজে গ্রহণ করতে পারে।’

সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, ‘ আমি সৌভাগ্যবান যে আমি সব সময় অনেক মানুষের সাহায্য পেয়েছি। তারা সবসময় আমার পাশে ছিলেন। আমার পরিবার হোক বা ভারতীয় বায়ুসেনা, আমার স্বপ্ন পূরণের জন্য সব তরফ থেকেই সহায়তা পেয়েছি। যদি কোনো কিছু তুমি প্রথম করো, তাহলে তোমার কাঁধে অনেক বড় দায়িত্ব থাকে। ‘

ছবিতে গুঞ্জনের চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন জাহ্নবী কাপুর। এছাড়াও এই ছবিতে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে পঙ্কজ ত্রিপাঠী ও অঙ্গদ বেদী কে। এদিন গুঞ্জন আরও জানিয়েছেন, ‘ আমি যখনই ঘুমাই তখনই স্বপ্ন দেখি কোনও বিমানের ককপিটে বসে আছি। ‘

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here