kolkata bengali news

Highlights

  • হয় এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কার করা হোক না হলে তা বন্ধ করে দেওয়া হোক
  • সংবাদ মাধ্যম সত্য প্রকাশ করতে ভয় পাচ্ছে
  • ১৯৮২ সাল থেকে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পুরোপুরি দেশ বিরোধী হয়ে যায়

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ১৯৬৯ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকেই জেএনইউ-এর ডিএনএ ‘ভারত বিরোধী’ বলে দাবি করেন আরএসএস তাত্ত্বিক নেতা ও রিজার্ভ ব্যাঙ্কের অস্থায়ী পরিচালক গুরুমূর্তি। বলেন, হয় এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কার করা হোক না হলে তা বন্ধ করে দেওয়া হোক।

রামস্বামী প্রতিষ্ঠিত ও গুরুমূর্তি সম্পাদিত ‘তুঘলক’ পত্রিকার বার্ষিক অনুষ্ঠানে তিনি জেএনইউ-এর প্রতি ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন, ১৯৬৯ সালে ইন্দিরা গান্ধী সরকারের বাম সমর্থন প্রয়োজন হয়ে পড়েছিল। তখন তারা একটাই দাবি জানায়, শিক্ষা হস্তান্তরের। ইন্দিরা গান্ধীর সময়ে এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হলেও পরবর্তী কালে তা কংগ্রেস বিরোধী হয়ে ওঠে। ১৯৮২ সালে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পুরোপুরি দেশ বিরোধী হয়ে যায় বলেও দাবি করেন তিনি। এই সময় ৪৩ দিন বন্ধ ছিল জেএনইউ বলেও দাবি করেন। তাঁর বক্তব্যের সময় উপস্থিত ছিলেন উপ রাষ্ট্রপতি এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু এবং তামিল নায়ক রজনীকান্ত।

উপস্থিত এক পত্রিকা পাঠকের প্রশ্নের জবাবে গুরুমূর্তি বলেন, সকলেই জানে জেএনইউ চিরকাল দেশদ্রোহী। তাই সংশোধন বা বন্ধ করে দেওয়ার প্রয়োজন। এদিন সংবাদ মাধ্যমের বিরুদ্ধেও উষ্মা প্রকাশ করে তিনি বলেন, সংবাদ মাধ্যম সত্য প্রকাশ করতে ভয় পাচ্ছে। জনগণ উদার ও ধর্মনিরপেক্ষ যাদের ভাবে, সঠিক সত্য প্রকাশিত হলে তাদের মুখোশ খুলে যাবে। গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে তাঁর দাবি, বাম সংগঠনের আনুগত্যের কারণেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কর্মকর্তা, কর্মচারী, অধ্যাপক, শিক্ষার্থীদের ওপর এবিভিপি আক্রমণ করেছে বলে খবর পরিবেশিত হচ্ছে।

এদিন অভিনেতা রজনীকান্ত সাংবাদিকদের সঠিক খবর পরিবেশনের কথা বলে। ডিএমকে কে সূক্ষ ভাবে আক্রমণ করেন। বলেন, যদি কারও ডিএমকে মুখপত্র মুরাসলি থাকে তাহলে বোঝাই যায় সে ডিএমকের পক্ষে। এরপরেই বলেন, কারও হাতে ‘তুঘলক’ পত্রিকা থাকলে বুঝতেই হবে সে বুদ্ধিমান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here