ডেস্ক: সামনেই ২০১৯ লোকসভা নির্বাচন তার ঠিক আগেই বড় ধাক্কা খেল বিরোধী শিবির। ২ বছরের জন্য জেলবন্দি হতে চলেছেন গুজরাতে বিজেপি বিরোধী অন্যতম মুখ হার্দিক প্যাটেল। দাঙ্গা ও ভাঙচুর চালানোর অভিযোগে তাঁকে ২ বছরের কারাদণ্ড দিল গুজরাতের স্থানীয় আদালত। নিশ্চিতভাবে আদালতের এই রায়ে কংগ্রেস সহ গুজরাতের পরিদার সম্প্রদায় যে বেশ বিপাকে পড়তে চলেছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

২০১৫ সালে গুজরাতের বিষ্ণাগারে পতিদার আন্দোলনের সময় বিজেপি বিধায়ক হৃষিকেশ প্যাটেলের দপ্তর ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই গুজরাত আদালতে দীর্ঘদিন ধরে মামলা চলছিল হার্দিকের বিরুদ্ধে এরপর বুধবারই ওই নেতাকে দোষী সাব্যস্ত করে আদালত এবং তাঁকে দি বছরের কারাদণ্ড সহ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তবে শুধু হার্দিক নয়, ওই একই অপরাধে হার্দিকের সঙ্গী সর্দার প্যাটেল, লালজি প্যাটেল, আম্বালা প্যাটেলকেও ২ বছরের কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে আদালত।

উল্লেখ্য, গুজরাতে দীর্ঘ দিন ধরে শিক্ষা ও চাকরি ক্ষেত্রে পতিদারদের সংরক্ষনের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছেন পতিদার নেতা হার্দিক প্যাটেল। সেই বিক্ষোভের কারনেই ২০১৫ সালে জাতীয় পতাকা সহ আন্দোলনে নেমে গুজরাতের বিষ্ণাগারে বিজেপি বিধায়ক হৃষিকেশ প্যাটেলের দপ্তর ভাঙচুর চালায় পতিদার নেতারা। সেই দলের নেতা ছিলেন হার্দিক। তবে লোকসভাপূর্বে হার্দিকের এই কারাদণ্ডে নিশ্চিতভাবে বিপদ বাড়ল বিরোধী শিবিরের। কারণ সামনেই লোকসভানির্বাচন যেখানে সমস্ত আঞ্চলিক দলগুলিকে সঙ্গে নিয়ে বিজেপি বিরোধী মহাজোট তৈরিতে তৎপর কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। সেই জায়গা থেকে গুজরাতে বিজেপি বিরোধী অন্যতম মুখ হিসাবে পরিচিত হার্দিক জেলবন্দি হওয়ায় বিপদ যে ঘোরালো হয়ে উঠছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here