নিজস্ব প্রতিবেদক, বনগাঁ: ফল চুরির অভিযোগে এক নাবালককে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ উঠল এক ফল ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। মারধরের চোটে ওই নাবালক জ্ঞান হারিয়ে ফেলার পাশাপাশি তার মুখ থেকে গাঁজলা উঠতে থাকে। খবর পেয়ে স্থানীয়রা অসুস্থ অবস্থায় ওই নাবালককে ভর্তি করে বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে। আহত কিশোর আলম মন্ডলের পরিবারের তরফে ঘটানার জেরে ঘটনায় অভিযুক্ত ফল ব্যবসায়ী ননীর নামে বনগাঁ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বনগাঁ থানার চাঁদা এলাকায়।

জানা গিয়েছে, আহত আলমের বাবা মায়ের মৃত্যু হয়েছে বেশ কয়েক বছর আগে। আলম ও তার ছোট ভাই তার বাবার ঠাকুরমা রহিমা মন্ডলের কাছে থাকে। বৃদ্ধা রহিমা কোনমতে ভিক্ষাবৃত্তি করে নিজের ও ওই দুই নাবালকের জীবনধারণ করেন। আলম স্থানীয় চাঁদা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র। জানা গেছে সোমবার সন্ধ্যার পর অভিযুক্ত ফল ব্যবসায়ী ফল চুরির অপবাদে আলমকে মারধর শুরু করেন। স্থানীয়রা আরও জানান আলম বারবার দাবি করতে থাকে সে চুরির ঘটনায় কোন ভাবেই যুক্ত নয়। তবুও তাকে মিথ্যা অপবাদের মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। ঘটনায় আলমের পরিবার ও স্থানীয়রা দোষী ব্যক্তির শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হয়েছে। আহত আলম বর্তমানে বনগাঁ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বনগাঁ থানার পুলিশ। যদিও মূল অভিযুক্ত ননী এলাকা ছেড়ে গা ঢাকা দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here