kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, হাওড়া: যুবতীর আপত্তিকর ছবি তুলে চলছিল ব্ল্যাকমেল। আর সেই ছবি সোস্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে জোর করে হয়েছিল বিয়েও। শুধু তাই নয়, বিয়ের পর থেকেই শুরু হয় অকথ্য অত্যাচার। রাতে যুবতীর নগ্ন ছবি তোলা হত বলে অভিযোগ। বাধা দিলেই চলত মারধর। স্বামীর অত্যাচারের হাত থেকে বাঁচতে বাড়ি ফিরলেও মেলেনি মুক্তি। এমনই অভিযোগ বি.কম অনার্স নিয়ে পাস ওই ছাত্রীর।

অভিযোগ, তাঁর বাড়িতে এসেও চলত হুমকি ও মারধর। স্বামীর সঙ্গে যেতে না চাওয়ায় যুবতীর আপত্তিকর ছবি তুলে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেন স্বামী। যুবতীর নামে একাধিক ফেসবুক প্রোফাইল খুলে সেখানে ছবি আপলোড করার অভিযোগ উঠেছে রাজারহাট চিনার পার্কের বাসিন্দা স্বামীর বিরুদ্ধে। শিবপুর থানায় মারধর ও হাওড়া সিটি পুলিশের সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন নির্যাতিতা। ঘটনার পর বেশ কিছুদিন কেটে গেলেও আদৌ তদন্ত এগোয়নি বলে অভিযোগ। নির্যাতিতার পরিবারের দাবি, বারবার খুনের হুমকি দিয়ে ফোন আসছে। ভয়ে কার্যত গৃহবন্দী হয়ে পড়েছেন যুবতী ও তাঁর পরিবার। জানা গিয়েছে, গত ২০১৫ সালে শিবপুরে একটি বিলাস বহুল আবাসনের নির্মাণে আসা ওই যুবকের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয় এই কলেজ ছাত্রীর। ২০১৯ সালে আইনি মেনে তাঁদের বিয়েও হয়। বিয়ের পর কলকাতার একটি নামী বেসরকারি সংস্থায় চাকরিও পান যুবতী। অভিযোগ, স্বামীর অত্যাচার ও হুমকির জেরে সেই চাকরি ছাড়তেও বাধ্য করা হয় তাঁকে। আরও অভিযোগ, প্রতিদিনই যুবতীর বাবার মোবাইলে বিভিন্ন নম্বর থেকে আসছে হুমকি দিয়ে ফোন। পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, এত কিছুর পরেও সব জানালে পুলিশ নিস্ক্রিয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here