মহানগর ডেস্ক: ‘একটা ঘরের মহিলাকে তো মিনিমাম সম্মান দেওয়া উচিত, অবশ্য আপনি সম্মান দেবেন কী করে? আপনি তো নিজের স্ত্রীকেই তো সারাজীবন দেখেন নি।’ উত্তর চব্বিশ পরগনার দমদমের নির্বাচনী জনসভা থেকে এদিন মোদিকে এইভাবেই আক্রমণ শানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। তবে কার্যত ‘মুখ ফস্কে’ এই কথা বলার পরেই মমতার প্রতিক্রিয়া, ‘আমি বলতাম না এই কথা, কিন্তু বলতে বাধ্য হলাম।’

এদিন সভার শুরু থেকেই রনংদেহি মেজাজে দেখা যায় মমতা বন্দোপাধ্যায়কে। মোদিকে একহাত নিয়ে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘ছবি তোলার জন্য মাঝে মাঝে বুড়ো মা কে দেখতে যান। কোনওদিন কাছে এনে রাখতে দেখেছেন?’ একইসঙ্গে তিনি বলেন, ‘যতদিন আমার মা বেঁচে ছিলেন, আমি আমার কাছে এনে রেখেছি। আমার মা বড্ড তাড়াতাড়ি চলে গেল, তার জন্য আমি আজও দুঃখ পাই।’ এরপরেই মোদির ‘দিদি…ও দিদি’ প্রসঙ্গ টেনে এনে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘বাংলা ইংরেজি মিশিয়ে কিসব স্প্যানিস শব্দ বলছেন, আমি নিজেও বুঝতে পারছি না ।’মমতার সংযোজন, ‘এমন একদিন আসবে যেদিন তোমার জিভ থাকবে, কিন্তু তুমি কথা বলতে পারবে না। সেদিন তুমি বুঝবে!’

আজ দমদমের সভায় নির্ধারিত সময়ের কিছুক্ষণ আগেই এসে পৌঁছান মমতা। এছাড়াও আজ মমতার বারাসাতের সভাও বাতিল হয়। এই ঘটনায় মোদির কাঁধে দোষ চাপিয়ে মমতা বলেন, ‘ওনার সভা যখন থাকবে, তখন অন্য কাউকে অনুমতি দেওয়া হবে না। উনি যখন তখন যেখানে সেখানে ঢুকে পড়ছেন। আর প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ক্ষমতার অপব্যবহার করছেন। হোয়াট ননসেন্স ইজ গোয়িং অন?’ বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়ে মমতা বলেন, ‘এরা রাজনৈতিক ভাবে মোকাবিলা করতে পারে না। এরা মানুষের মনে বিষ মেশাচ্ছে, কিন্তু এদের বিষ দাঁত মানুষ ভাঙবে। এদিন মমতা সাফ জানিয়ে দেন, মোদি বাবু, হাজারটা মিটিং করলেও আপনি কিন্তু বাঙালা পাবেন না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here