ডেস্ক: রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে জটিলতা নতুন নয়, একাধিক মামলা জটে আটকে রয়েছে চাকরিপ্রার্থীদের ভবিষ্যৎ। এরইমাঝে এল সুখবর। উচ্চ প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তরে শিক্ষক নিয়োগের উপর থেকে অন্তরবর্তীকালীন স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করল কলকাতা হাইকোর্ট। যার ফলে ২০১৬ সালে হওয়া টেট পরীক্ষায় শিক্ষক নিয়োগ করতে পারবে রাজ্য।

রাজ্যে একযোগে বহু শিক্ষক নিয়োগের জন্য ২০১৬ সালে টেট পরীক্ষার আয়োজন করে সরকার। কয়েক লক্ষ পরীক্ষার্থী অংশ নেয় সেই পরীক্ষায়। তবে ফল প্রকাশের পর আইনি জটিলতায় বন্ধ হয়ে যায় শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়া। সমস্যার মূল কারণ বিশেষ ক্ষমতাসম্পন্ন প্রার্থীদের নিয়ে। সেখানে ৩ শতাংশ আসন কমিয়ে ১ শতাংশ করে দেওয়া হয়। হঠাৎ করে সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হন এক বিশেষ ক্ষমতাসম্পন্ন প্রার্থী। যার জেরেই ওই নিয়োগের উপর অন্তরবর্তীকালীন স্থগিতাদেশ জারি করে আদালত। তবে সমস্যা কাটিয়ে অবশেষে সেই স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করল হাইকোর্ট যার জেরে খুলে যেতে চলেছে বিপুল সংখ্যক চাকরিপ্রার্থীর ভাগ্য।

তবে স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়া হলেও মামলা এখনও চলবে হাইকোর্টে সেক্ষেত্রে যে ক’জন প্রার্থী মামলা দায়ের করেছেন তাঁদের সিটগুলি খালি রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি দীর্ঘ মামলার জেরে নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ থাকার জন্য মামলাকারীদের দায়ি করেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, শিক্ষক নিয়োগ করার মতো সদিচ্ছা আমাদের আছে। কিন্তু এখন কিছু হলেই সবাই কোর্টে দৌড়চ্ছেন । তাঁদের কাছে আমার আবেদন, কিছু যদি ভুলচুক হয় তাহলে আসুন বসে আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টার সমাধান সম্ভব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here