kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক:   মমতার বিরুদ্ধে সেই মুসলিম তোষণ নিয়ে সরব হলেন অসমের অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা৷ প্রাক্তন কংগ্রেসর এই রাজ্য মন্ত্রী এখন দল বদলে বিজেপি শাসিত অসমের অর্থমন্ত্রী৷ তথা উপ মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর সাফ কথা, ‘মমতা আসলে কী বলতে চান, এ নিয়ে দ্বিধায় রয়েছেন। মমতা আসলে বলতে চান, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সমর্থন করব, যদি মুসলিমদেরও অন্তর্ভুক্তি করা হয়’। নাগরিকপঞ্জীকরণ(এনআরসি) ও নাগরিক সংশোধনী বিল(ক্যাব) এর তুমুল বিরোধিতা আগাগোড়াই করে আসছেন পশ্চিম বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাঁর স্পষ্ট কথা,‘বাংলায় কোনও ডিটেনিশন ক্যাম্প (অনাগরিক শিবির) করা হবে না’৷ এই প্রসঙ্গে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে বিঁধলেন অসমের মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা হিমন্ত বিশ্বশর্মা।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ও ডিটেনশন ক্যাম্প নিয়ে মমতার বিরোধিতা প্রসঙ্গে হিমন্তের বক্তব্য, ‘যদি নাগরকিত্ব সংশোধনী বিল পাস না হয়, তবে ডিটেনশন ক্যাম্প থাকবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কী চান, তা সবার সামনে স্পষ্ট করা উচিত। আসলে উনি কী বলতে চান, সে নিয়ে দ্বিধায় রয়েছেন। উনি আসলে বলতে চান-‘আমি নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সমর্থন করব, যদি মুসলিমদের অন্তর্ভুক্তি করা হয়’। আমরা চাই উনি এটা প্রকাশ্যে বলুন। কেন ঘুরিয়ে একথা বলছেন? আমি ডিটেনশন ক্যাম্পও চাই না, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলও চাই না, দুটো এক হয় কখনও? উনি অযৌক্তিক কথা বলছেন। যদি আপনি বিদেশি হন, তাহলে আপনাকে ডিটেনশন ক্যাম্পে পাঠানো হবে’।উল্লেখ্য, ক’দিন আগেই উত্তরকন্যায় প্রশাসনিক বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বাংলায় কোনও ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরি করা হবে না। এখান আমাদের সরকার রয়েছে, এনআরসি করতে আমার দেব না’।

শুধুমাত্র অনুপ্রবেশকারী মুসলিমদের দেশ থেকে তাড়াবে- গেরুয়া শিবির তথা বিজেপির এই একরোখা নীতি থেকে সরলেন না অসমের উপ মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা৷ তাঁর সোজা কথা, ‘নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হয়ে গেলে, হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, খ্রিস্টানদের জন্য ডিটেনশন ক্যাম্প বন্ধ করে দেওয়া হবে। অন্যান্যদের কী হবে তা আদালত স্থির করবে’। প্রসঙ্গত, এই মুহূর্তে আসামে ৬টি ডিটেনশন ক্যাম্প রয়েছে। হাজারেরও বেশি মানুষ রয়েছেন এই ক্যাম্পে। এর মদ্যে অধিকাংশই হিন্দু বাঙালি৷ মারাও যাচ্ছেন হিন্দু বাঙালি৷ এই বিষয়ে অবশ্য একেবারেই নীরব অসমের উপ মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here