ভারত-পাকিস্তান, ধর্ম ও কাঁটাতারের বেড়া ডিঙিয়ে অন্য গল্প শোনাল দুই নারীর প্রেম

0
123

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রক্ষণশীলতা, জাতীয়তাবাদ ও বিদ্বেষ অত্যন্ত ভারী এই তিন কঠিন শব্দগুলিকে এক লহমায় চুর্ণ করল সহস্র বছর ধরে অক্লান্ত পথ হেঁটে চলা একটি শব্দ, ‘প্রেম’। অবশ্য বাধা কম ছিল না, মাঝে বিশাল কাঁটাতারের বেড়া। তার উপর উগ্র জাতীয়তাবাদের আবহে সেই বেড়ার দুইপাশ জুড়ে সর্বদা বহমান যুদ্ধের রক্তস্রোত। রয়েছে ধর্মীয় ভেদ। আর সর্বপরি সমকামিতার রক্ষণশীলতা। ভিন ধর্মী একজন পাকিস্তানী মহিলা অন্যএকজন ভারতীয় মহিলার সঙ্গে প্রেম করতে পারে? হ্যাঁ পারে। শুধু পারে নয়, ধর্মান্ধতা ও হিংসার পর্দাকে দূরে সরিয়ে দেখিয়ে দিতে পারে মানুষে নিদর্শন তার সুন্দর মন, সেখানে কাঁটাতারের বেড়া যতই চোখ রাঙাক না কেন। এমনই দুই নারীর দুঃসাহসিক প্রেমের গল্প মন জয় করে নিল বহু মানুষের। গড়ে তুলল এক অনন্য দৃষ্টান্ত।

সমকামিতাকে স্বীকৃতি দেওয়ার দাবিতে দেশজুড়ে লড়াইটা কম হয়নি। কোনও দেশ রক্ষণশীলতার বেড়া ভেঙে এহেন প্রেম কাহিনীকে স্বীকৃতি দিলেও, কেউ আজও ভাঙতে পারেনি প্রবাহমান এই অন্ধকারের বেড়া। তবে শুধু বেড়া ভাঙাই নয়, ধর্মের বেড়া ভেঙে দুই দেশকে চমকে প্রেমে মজেছিলেন পাকিস্তানী মুসলিম মহিলা সান্দাস মালিক এবং ভারতীয় হিন্দু অঞ্জলি চক্র। দীর্ঘদিনের প্রেমের পর, সেই প্রেমকে স্বীকৃতি দিতে খুব শীঘ্রই বিয়ে করতে চলেছেন তাঁরা। এই বার্তা বিশ্বমাঝে ছড়িয়ে দিতে তাঁদের পোস্ট করা একে অপরের ঘনিষ্ঠ ছবি নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে সম্প্রতি। যা দেখে ওই দুই সাহসি কন্যাকে সাবাশি দিয়েছে গোটা বিশ্ব।

নিউইয়র্ক শহরের এক বৃষ্টিভেজা সকাল। আর এমনদিনেই হয়ত নিজেদের প্রেমের বার্তা বিশ্বের কাছে পৌঁছে দিতে বেছে নিয়েছিলেন প্রেমিকা যুগল। বিয়ের আগে প্রিওয়েডিং ফোটো স্যুটের উদ্দেশ্যে ছাতার নীচে তুলেছিলেন একাধিক ছবি। কখনও আলিঙ্গনাবদ্ধ হয়ে তো কখনও চুম্বনরত অবস্থায়। আর সেই ছবি টুইটারে পোস্ট হতেই মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায় তা। যার ক্যাপসানে লেখা ‘অ্যা নিউ ইয়র্ক লাভ স্টোরি’। দুই দেশকে প্রেমের বার্তা দিয়ে বিশ্বের সামনে নজির গড়ে দেওয়া এই দুই নারীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন নেটিজেনরা। রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গিয়েছে বৃষ্টিভেজা ওই দুই নারীর ছবি। টুইটার ছাড়াও ইন্সটাগ্রামে এই ছবি পোস্ট করেছেন সান্দাস মালিক। যার ক্যাপসানে লেখা, ‘সাধারণত ওর কূর্তার লেহেঙ্গা আমিই হয়ে থাকি। কিন্তু দুই পরিবারকে মিলিয়ে বিয়ের আয়োজনটা কিছুটা হলেও কষ্টের ছিল।’ তবে সেই কষ্ট কাটিয়ে সমস্ত বাধা বিপত্তিকে সরিয়ে এই প্রেমকে স্যালুট জানিয়েছেন প্রত্যেকেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here