বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ, পরিকল্পিতভাবে খুনের অভিযোগ শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে

0
68
murder_generic1Sgg

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঁকুড়া: বাড়ি ছিল তালা বন্ধ৷ ভেতরে ঝুলছিল দেহ৷ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা কেউই ছিলেন না৷ এমনকি উধাও ছিল স্বামীও৷ বাঁকুড়ার কোতুলপুরে গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যুতে ঘনীভূত হচ্ছে রহস্য৷ উঠছে হাজার প্রশ্ন৷ গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠছে শ্বশুরবাড়ির দিকেই৷ এক গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়েছে বাঁকুড়ার কোতুলপুর থানা এলাকার বড়গেড়িয়া গ্রামে। মৃতার নাম মধুমিতা বাগ। সোমবার শ্বশুরবাড়ি থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। আট বছর আগে হুগলির গোঘাটের রামেশ্বরপুর গ্রামের মধুমিতা সাঁতরার সঙ্গে বিয়ে হয় কোতুলপুরের বড়গেড়িয়া গ্রামের পেশায় কোল্ড স্টোরেজ কর্মী মানিক বাগের। তাদের একটি ছ’বছরের পুত্র সন্তান রয়েছে।

মৃতার বাপের বাড়ির তরফে অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাদের মেয়েকে মারধর করে খুন করে গলায় দড়ি দিয়ে টাঙ্গিয়ে দিয়েছে৷ তারপরেই বাইরে থেকে বাড়ি তালা দিয়ে চম্পট দিয়েছে তারা। ঘটনার খবর পেয়ে কোতুলপুর থানার পুলিশ গ্রামে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে পাঠায়।

মৃতার বোনের অভিযোগ, জামাইবাবু বাইরে বেরিয়ে গেলেই শ্বশুরবাড়ির লোকজন দিদির ওপর অত্যাচার করতো। মৃতার স্বামীকে সম্পূর্ণ নির্দোষ দাবি করেন তিনি। তবে তার দিদির শ্বাশুড়ি ও দেওর পরিকল্পিতভাবে এই খুন করেছে বলে তার অভিযোগ। খুনের ঘটনার পর অভিযুক্তরা বাড়ির দরজায় তালা দিয়ে পালিয়ে গিয়েছে বলেও দাবি উঠছে মৃতার পরিবারের তরফে৷ কোতুলপুর থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here