শহরে ফের পণপ্রথার ববর্রতা! রহস্য মৃত্যু গৃহবধূর

0
179

ডেস্ক: মানিকতলা থানা এলাকায় রহস্য মৃত্যু হল গৃহবধূর৷ মুরারিপুকুর অঞ্চলে ওই গৃহবধূর মৃত্যুকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে স্থানীয়দের মধ্যে৷ শ্বশুরবাড়ি থেকে ওই গৃহবধূকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন৷ গৃহবধূর নাম ফুলকুমারী মারিক৷

পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, বছর তিনেক আগে ফুলকুমারীর সঙ্গে বিয়ে হয় মানিকতলার দীপক মারিকের৷ ফুলকুমারীর পরিবারের দাবি, বিয়ের সময় পণ হিসেবে নগদ এক লক্ষ টাকা চাওয়া হয়েছিল দীপক মারিকের বাড়ির পক্ষ থেকে৷ কিন্তু বিয়ের সময় টাকা দেওয়া সম্ভব হয়নি ফুলকুমারীর বাড়ি থেকে৷ পরে অবশ্য দাবি মতো পুরো টাকাটাই দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে গৃহবধূর পরিবারের লোকেরা৷ টাকার পাশাপাশি চাহিদা মতো দেওয়া হয়েছিল কয়েক লক্ষ টাকা গহনা৷ দীপক মারিক এবং ফুলকুমারীদেবীর বছর দেড়েকের একটি সন্তানও রয়েছে৷ তারপরও শ্বশুর বাড়ির পক্ষ থেকে প্রতিনিয়ত অত্যাচার করা হত বলে অভিযোগ৷

জানা গিয়েছে, বিয়ের কিছুদিনের পর থেকেই পণের দাবিতে ফুলকুমারীর ওপর অত্যাচার শুরু করে দীপকের পরিবারের সদস্যরা। শারীরিক ও মানসিক, দু-ভাবেই চলতো অত্যাচার৷ গৃহবধূর পরিবারের অভিযোগ , দীপক এক আত্মীয়র সঙ্গে সম্প্রতি বিবাহ- বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পরে। তার জেরেই তাঁদের সংসারে আরও অশান্তির সৃষ্টি হয়। অশান্তি এবং নির্যাতনের কারণেই ফুলকুমারীর মৃত্যু হয়। তবে তাঁকে খুন করা হয়েছে, নাকি আত্মহত্যা, এখনও বিষয়টি স্পষ্ট নয়৷ পরিবারের লোকেরা মাণিকতলা থানায় দীপক ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোদ জানিয়েছে৷ পুলিশ গোটা ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here