নিজস্ব প্রতিবেদক, বারাকপুর: এক গৃহবধূর ঝুলন্তদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল উত্তর ২৪ পরগনার বরানগরের রায় মোহন ব‍্যানার্জী রোডে। মৃত গৃহবধূর নাম দীপা দাস (৪০)। সোমবার রাতে ওই গৃহবধূর দেহ উদ্ধার করে বরানগর থানার পুলিশ। মৃতের বাপের বাড়ির আত্মীয়দের অভিযোগ, পনের চাহিদা পূরণ না হওয়ায় স্ত্রী দীপাকে শ্বাসরোদ করে খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মৃতের দিদির অভিযোগ, মৃতের স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির আত্মীয়রা সকলে মিলে দীপাকে খুন করেছে। মৃতের স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির আত্মীয়দের সকলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছে মৃতের বাপের বাড়ির আত্মীয়রা। মৃতের পরিবারের তরফে জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে দিপার ছেলের ফোন পেয়ে তাঁরা জানতে পারেন দীপার মৃত্যু হয়েছে। এরপর মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে গিয়ে তাঁরা দেখেন দীপার দেহ ঘরের মেঝেতে শোয়ানো অবস্থায় রয়েছে। মৃতদেহ দেখে মৃতের বাপের বাড়ির আত্মীয়দের অভিযোগ, পনের দাবীতেই খুন করা হয়েছে দীপাকে। মৃতের বাপের বাড়ির আত্মীয়দের সুনির্দিষ্ট লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে দীপার স্বামী চন্দনকে গ্রেপ্তার করেছে বরানগর থানার পুলিশ। অভিযুক্ত চন্দন পেশায় হোটেলের বাউণ্সার ছিল বলে জানা গিয়েছে।

মঙ্গলবার দীপার দেহ কলকাতার আরজিকর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। অভিযুক্ত স্বামী চন্দনকে জেরা করছে পুলিশ। গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে বরানগর থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here