kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, পুরুলিয়া: তৃণমূল কংগ্রেস এর পক্ষ থেকে পুরুলিয়ায় পালিত হল হুল দিবস। যদিও আদিবাসীদের পক্ষ থেকে ১৬৬তম হুল দিবস পালিত হল না। আজ ঝালদা এক ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস এর পক্ষ থেকে সিধু ও কানু’র মূর্তিতে মাল্যদান করে হলদিবস পালিত হয়। ঝালদা এক নম্বর ব্লকের যুব তৃণমূল ও জয়হিন্দ বাহিনী অংশগ্রহণ করে।

এ বিষয়ে ঝালদা এক নম্বর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস কার্যকরী সভাপতি জগদীশ মাহাতো জানান, ঠিক আজকের দিনে অর্থাৎ ১৮৫৫ সালের ৩০ জুন তৎকালীন সাঁওতাল পরগনার ভগনাডি গ্রামের ৬ জন বীর কৃষক সন্তান সিধু মুর্মূ, কাহু মুর্মূ, চাঁদ মুর্মূ, ভাইরো মুর্মূ ও তাঁদের দুই বোন ফুলো, ঝালো হাজার হাজার সাঁওতাল ভাইদের একত্রিত করে ব্রিটিশ সরকারের মোহাজনি প্রথা, মাতৃভূমি অরণ্যের অধিগ্রহণ ও নারীদের ওপর চরম নির্যাতনের প্রতিবাদে জাতীয় অস্ত্র আগসার(তীর-ধনুক), কাপি(টাংগী),দাতরম(কাস্তে) নিয়ে ইংরেজদের বিরুদ্ধে হুল(যুদ্ধ) ঘোষণা করেন। পরাধীন ভারতবর্ষে ইংরেজ বিরোধী মনোভাব তৈরি করে স্বাধীন ভারত গড়ার স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন। তাই আমরা সকলে মিলে হুল উদযাপনের মাধ্যমে বীর সন্তানদের শ্রদ্ধা জানিয়ে তাদের ইতিহাসের কথা স্মরণীয় রাখতে এই দিনটি পালন করলাম।

যদিও এবছর আদিবাসীদের পক্ষ থেকে আজকের এই হল দিবস পালন করা হয়নি। কেন পালন করা হয়নি সে সম্পর্কে জানালেন অখিল ভারতীয় আদিবাসী বিকাশ পরিষদের ঝালদা এক নম্বর ব্লক ইউনিট সভাপতি লক্ষীনারায়ণ মাঝি। তিনি জানান, ঝাড়খণ্ডের  ভোগান্ডি গ্রামে সিধু কানু’র বাড়ি। সেখানে এখনও ষষ্ঠ পিঁড়ির বংশধর রয়েছে। সেই পরিবারের রামেশ্বর মুর্মু ইভটিজিং-এর প্রতিবাদ করে গত ১২ জুন নিখোঁজ হন। পরদিন ১৩ জুন তার দেহ উদ্ধার হয়। এখনও দোষীরা কেউ ধরা পড়েনি। পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছিল, আজকের দিনটি পালন না করার জন্য। তাই এই পবিত্র দিনটি পালিত হল না। তবে আগামী বছর এই দিনটি পালিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here