kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, ভাঙড়: কয়েক মাসে আগে ভাঙড়ে তৃণমূলের কিছু নিচুতলার কর্মীদের বিজেপিতে শামিল করে ভাঙড়ের বুকে ঘাঁটি গেড়েছিলেন বিজেপির রাজ‍্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তবে বিধানসভা নির্বাচন এগিয়ে আসতেই ভাঙড়ের বুকে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব। গেরুয়া শিবির-সহ সিপিএমে ভাঙন ধরিয়ে কয়েকশো কর্মী জেলা সভাপতি শুভাশিস চক্রবর্তী, তৃণমূল নেতা নান্নু হোসেনের হাত ধরে তৃণমূলে যোগদান করলেন।

শনিবার ভাঙড়ের শোনপুরে তৃণমূলের সংখ্যালঘু সেলের আয়োজনে কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে এক জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। তৃণমূল কর্মীদের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে জনসভা উপচে পড়ে। এই সভায় উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার তৃণমূলের সভাপতি তথা সাংসদ শুভাশিস চক্রবর্তী-সহ ভাঙড়ের জেলা পরিষদ সদস্য নান্নু হোসেন। এদিনের এই সভায় শুভাশিস, নান্নু হোসেনের হাত থেকে তৃণমূলের পতাকা নিয়ে কয়েকশো বিজেপি এবং সিপিএম কর্মী তৃণমূলে যোগদান করেন।

এদিনের এই সভায় শুভাশিস চক্রবর্তী বলেন, ‘দিলীপ ঘোষ ভাঙড়ে পাগলামি করতে একবার এসেছিলেন। মহসিনের ভয়ে পালিয়েছেন। এই ভাঙড়-সহ বাংলায় বিজেপির কোনও স্থান নেই।‘ দুর্যোগকে উপেক্ষা করে সভাস্থল কানায় কানায় পূর্ণ থাকায় নান্নু হোসেন, মিজানুর আলম, আব্দুর রহিম-সহ মহসিন গাজিদের ধন্যবাদ জানান জেলা সভাপতি। এই সভায় দাঁড়িয়ে ভাঙড়ের বদনাম দূর করার জন্য স্বচ্ছ ভাবমূর্তির মানুষকে ২০২১-শে ভাঙড়ের বিধায়ক করার দাবি করেন তৃণমূল নেতা নান্নু হোসেন। এর পাশাপাশি তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here