নিজস্ব প্রতিবেদক, সিউড়ি: ছেলে রাজমিস্ত্রীর কাজ করে। তা দেখেই বছর পনেরো আগে সেই ছেলের সঙ্গে নিজের মেয়ের বিয়ে দিয়েছিলেন মর্জিনা বিবি। বিয়ের সময় যৌতুক হিসাবে ১০ বিঘা জমিও মেয়ে-জামাইকে দিয়েছিলেন মর্জিনা। কিন্তু বিয়ের কয়েক বছর পর থেকেই বদলে যেতে শুরু করে জামাই। কাজকর্ম ছেড়ে নেশাভাঙ করতে থাকে সে। গত কয়েক মাস ধরে বউয়ের ওপর সে চাপ বাড়াতে থাকে জমিজমা বিক্রি করে দেবার জন্য। কিন্তু তাতে রাজি হয়নি মর্জিনা বিবির মেয়ে আয়েশা বিবি। শুক্রবার সকালে সে আয়েশার কাছে টাকা চায় নেশা করবে বলে।

কিন্তু তা দিতে অস্বীকার করায় আয়েশাকে মারধোর শুরু করার পাশাপাশি তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ মারে মহম্মদ আবু বক্কর। তার জেরে হাতে ও মাথায় চোট পান আয়েশা। তারপরেই ঘর থেকে বেড়িয়ে আবু গ্রামের কাছে খেরুয়া হল্ট স্টেশনে অন্ডাল-সাঁইথিয়া শাখার রেললাইনে মাথা দিয়ে আত্মঘাতী হয় বক্কর। ঘটনার জেরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ায় বীরভূম জেলার সিউড়ি সদর থানার মাঠপলসা গ্রামে। ঘটনার পরেই মহিষাডহরী গ্রাম থেকে মাঠপলসা গ্রামে ছুটে আসেন মর্জিনা বিবি। তিনিই মেয়েকে উদ্ধার করে তাকে সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে এনে ভর্তি করেন। গ্রাম সুত্রে জানা গিয়েছে, আবু আর আয়েশার তিন সন্তান রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here