death
death

নিজস্ব প্রতিবেদক, নদীয়া: দেনার টাকা শোধ করতে না পেরে স্ত্রীকে খুন করে আত্মঘাতী হল স্বামী। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে নদীয়ার কল্যাণীর নতুন পল্লী এলাকায়। মৃত স্বামী ও স্ত্রীর নাম বাপি চক্রবর্তী(৩৬) ও ঝুমা চক্রবর্তী (৩০)। ঘটনার জেরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

সূত্রের খবর, নদীয়ার কল্যাণী পুরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের নতুন পল্লীর বাসিন্দা বাপী চক্রবর্তী। পেশায় রঙের মিস্ত্রি হলেও কাজ না থাকায় দীর্ঘ দিন ধরেই সংসারে চলছিল অভাব। সংসার চালাতে বাজারে দিনের পর দিন বাড়ছিল দেনা। বাজারে বেশ মোটা অংকের টাকা দেনা জমে গিয়েছিল তাঁর। কিন্তু সময় মতন সেই দেনার টাকা শোধ করতে না পারায় পাওনাদারদের সাথে প্রায়শই অশান্তি হচ্ছিল বাড়িতে। স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার জেরে দীর্ঘদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন চক্রবর্তী দম্পতি। বৃহস্পতিবার সকালে দীর্ঘসময় ঘরের দরজা না খোলায় ওই দম্পতির ছেলেরা ঘরের দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে দেখতে পায় মাটিতে পড়ে রয়েছে মা ঝুমা চক্রবর্তীর মৃতদেহ। ওদিকে পাখার সাথে ঝুলছে বাবা বাপী চক্রবর্তীর দেহ।

এরপরই খবর যায় পুলিশে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় কল্যাণী থানার পুলিশ। মৃতদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে তাঁরা। প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান, প্রথমে স্ত্রীকে ঝর্ণা চক্রবর্তীকে শ্বাসরোধ করে খুন করে পরে নিজে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন বাপী চক্রবর্তী। ঘটনার জেরে এলাকায় নেমেছে শোকের ছায়া।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here