kolkata news
Highlights

  • বিভিন্ন কারণে পারিবারিক কলহ লেগেই ছিল
  • আর সেই অশান্তির জেরে স্বামীকে খুন করল স্ত্রী
  • এরপর সোজা থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করল স্ত্রী


নিজস্ব প্রতিনিধি, বনগাঁ:
বিভিন্ন কারণে পারিবারিক কলহ লেগেই ছিল। আর সেই অশান্তির জেরে স্বামীকে খুন করল স্ত্রী! খুনের পর পালিয়ে যায়নি অভিযুক্ত। এরপর সোজা থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করল স্ত্রী। অভিযুক্ত মহিলার নাম শ্যামা দে (শান্তি )। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে বনগাঁ থানার নেহরুনগর এলাকায়। এই ঘটনায় হাড়হিম করা আতঙ্ক ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়। কী করে ওই মহিলা এমন কাজ করল তা ভেবে পাচ্ছে না এলাকার বাসিন্দারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বনগাঁর নেহরুনগরের বাসিন্দা নিহত শংকর দে-র প্রথম পক্ষের স্ত্রী চলে বাড়ি ছড়ে চলে যান আড়াই বছর আগে। এরপর তিনি বিয়ে করেন শান্তি দে নামে ওই মহিলাকে। শঙ্করের পরিবারের দাবি, বিয়ের পর থেকেই শংকরের ওপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করত শান্তি। প্রতিনিয়ত তাদের মধ্যে অশান্তি লেগেই থাকত। আর এই কারণে এক বছর আগে শান্তি বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিল বলে তারা জানান। কিছুদিন আগে আবারও শান্তি বাড়িতে ফিরে আসে বলে পরিবারের দাবি।

এলাকাবাসীর দাবি, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিজের বাড়িতে স্বামীকে খুন করে শান্তি। প্রথমে হাতের শিরা কেটে এবং পরে গলায় ফাঁস দিয়ে তাকে খুন করে বলে অভিযোগ। পরে বনগাঁ থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে ও খুনের ঘটনা পুলিশকে জানায় সে। বনগাঁ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শংকরের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে। ঘটনার জানাজানি হতেই কান্নায় ভেঙে পড়েন পরিবারের লোকেরা। স্বামী খুনে অভিযুক্ত স্ত্রীর শাস্তির দাবিতে সরব হন প্রতিবেশীরা।

তবে ঠিক কী কারণে শান্তি এমন ঘটনা ঘটাল, তা এখন স্পষ্ট নয় পুলিশের কাছে। শান্তিকে আটক করে তদন্ত ঘটনার তদন্ত চালাছে বনগাঁ থানার পুলিশ। এলাকার মানুষ স্বামী খুনে অভিযুক্ত স্ত্রীর কঠিন শাস্তি দাবি করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here