kolkata news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: পেঁয়াজের দামে নাকের জলে চোখের জলে দশা দেশবাসীর। ৬০, ৮০ থেকে বর্তমানে ১৫০ গণ্ডি ছাড়িয়ে ১৬০ ছুঁয়েছে এই ঝাঁঝালো ফসল। আম জনতা পেঁয়াজের দুঃখে কাতর হয়ে পড়লেও বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁর কিন্তু এই মুল্য বৃদ্ধিতে বেজায় খুশি। তার কারণও অবশ্য ব্যাখ্যা করলেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ মশাই।

বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সৌমিত্র বলেন, ‘পেঁয়াজের দাম বাড়া অত্যন্ত ভাল খবর। আমি ভীষণ খুশি হয়েছি বিষয়টিতে। পেঁয়াজের দাম বাড়ায়, কৃষকরা বেশি দাম পাচ্ছে।’ তার কথায়, ‘কৃষকরা যদি বেশি দাম পায়, আমি তাতে উৎসাহিত হচ্ছি। যখন ফ্ল্যাটের দাম ১ কোটি টাকা থেকে ৩ কোটি টাকা হয়ে যায়, তখন তো কেউ কিছু বলে না। এখন কৃষকরা পেঁয়াজের দাম একটু বেশি পাচ্ছে, তার জন্য সবার দুঃখ হচ্ছে। তাছাড়া পেঁয়াজটা এমন কিছু ব্যাপার না, ওটা না খেয়েও থাকা যায়। আমি কৃষক এলাকার সংসদ, কৃষকরা যদি চালের দাম বেশি পায়, লঙ্কার দাম বেশি পায়, পেঁয়াজের দাম বেশি পায় আমি খুশিতো হবই।’ খুব স্বাভাবিকভাবেই সৌমিত্র খাঁর এই মন্তব্যে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য, পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি নিয়ে বিতর্ক ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে সংসদ ভবনেও। বুধবার সংসদে এক প্রশ্নের জবাবে দাঁড়িয়ে খোদ অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বললেন, ‘চিন্তা করবেন না, আমি এমন একটা পরিবার থেকে এসেছি যেখানে পেঁয়াজ বা রসুন খাওয়া হয় না। তাই এটা নিয়ে আমার কোনও মাথাব্যথা নেই।’ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর এহেন মন্তব্যে আগুন ছড়িয়েছে দেশের সর্বত্র। পাশাপাশি তাঁর সুরেই গলা মিলিয়ে অন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অশ্বিনী চৌবে বলেন, ‘আমি নিরামিষাসী। গোটা জীবনে আমি কখনও পেঁয়াজ খেয়ে বা চেঁখে দেখিনি। আমার মতো একজন ব্যক্তি বাজারে পেঁয়াজের দাম নিয়ে ধারণা কীভাবে রাখতে পারে?’ এবার সেই পথে না হাঁটলেও ঘুরপথে বিতর্ক চড়ালেন সৌমিত্র খাঁ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here