bengali news on jamia

মহানগর ওয়েবডেস্ক: পড়ুয়ারা রক্তাক্ত অবস্থায় লাইব্রেরিতে পড়ে আছেন৷ কোথাও তাঁরা আবার বিধ্বস্ত হয়ে পড়ে আছেন ক্যাম্পাসের ভেতরের রাস্তায়৷ অনেক মহিলা ঝোপঝাড়ে লুকিয়ে পড়েছেন৷ জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশের দমন পীড়নের পর এটাই ক্যাম্পাসের ছবি৷ এক ছাত্রীর কথায়, আমরা ভেবেছিলাম দিল্লি ছাত্র ছাত্রীদের জন্য নিরাপদ জায়গা৷ এটা কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়৷ আমি ভেবেছিলাম বিশ্ববিদ্যালয় নিরাপদ জায়গা৷ আমাদের সঙ্গে কিছু হতে পারে না৷ আমরা সারা রাত কেঁদেছি৷ কী হচ্ছে এটা! তিনি আরও বলেন, আমি মনে করি সারা দেশে আমরা সুরক্ষিত নই৷ আমি জানি না কোথাও যাব? মার খেতে হচ্ছে৷ আমি জানি না আমার বন্ধুরা ভারতীয় থাকবেন কিনা৷ সম্প্রতি যে বিল আইনে পরিণত হয়েছে, তাতে বলা হয়েছে, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আসা অমুসলিমরা নাগরিকত্ব পাবেন৷

জামিয়ার এক ছাত্রী বলেন, আমি মুসলিম না৷ আমি প্রথম দিন থেকে আন্দোলনের প্রথম সারিতে৷ কেন? কারণ আমার পরিবারের সঙ্গে যা ঘটেছে, তার জন্য৷ সঠিক মতামতের পক্ষে দাঁড়াতে না পারি, তাহলে শিক্ষার মূল্য কী? অন্য এক ছাত্রীর কথায়, পুলিশ ক্যাম্পাসের ভেতর ঢুকে পেটাতে থাকে৷ ছাত্র-ছাত্রদীর হাত উঁচু করে বেরিয়ে যেতে বাধ্য করে৷

এ দিকে, জামিয়ার ঘটনার প্রতিবাদে এএমইউ-তে বিক্ষোভ ও পুলিশের সঙ্গে ছাত্রছাত্রীদের সংঘর্ষের পর কর্তৃপক্ষ ছাত্রছাত্রীদের বিশ্ববিদ্যালয় খালি করে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। ঘোষণা করা হয়, ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে। প্রতিবাদে সোচ্চার আইআইএম-মুম্বই ও আইআইটি-মাদ্রাজ-সহ বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা। মুম্বইয়ের টাটা ইনস্টিটিউট অফ সোশ্যাল সায়ান্সেসের ছাত্রছাত্রীরা সোমবার সব ক্লাস বয়কটের সিদ্ধান্ত নেন। সকালের হাড়-কাঁপানো ঠান্ডায় গেটের সামনে খালি গায়ে বিক্ষোভ দেখান জামিয়ার একদল ছাত্র। জামিয়ার ঘটনা ও সিএএ-র প্রতিবাদে বেঙ্গালুরুর আইআইএস, বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়, চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয়, হায়দরাবাদের মৌলানা আজাদ উর্দু বিশ্ববিদ্যালয়েও বিক্ষোভে শামিল হন ছাত্রীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here