রাম রক্ত বহমান, কুশের পর এবার নিজেকে লবের বংশধর বলে দাবি করণী সেনা প্রধানের

0

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রামের রক্ত কার শরীরে বইছে? রঘু বংশের ধারক হয়ে বেঁচে রয়েছেন এমন কেউ কি আছেন পৃথিবীতে? শীর্ষ আদালতের এহেন প্রশ্নে সম্প্রতি মুখ খুলেছিলেন জয়পুরের প্রাক্তন রাজকুমারী তথা বিজেপির সাংসদ দীয়া কুমারী। তাঁর দাবি ছিল, তিনি নাকি রামের পুত্র কুশের বংশধর। তবে রামের যে আরও এক পুত্র রয়েছেন তিনি লব। কুশের বংশদর পাওয়া গেল আর লবের পাওয়া যাবে না তাই কি হয়? কুশের পর এবার নিজেকে লবের বংশধর বলে দাবি করলেন রাজস্থানের করনি সেনা প্রধান লোকেন্দ্রা সিং কালভি।

নিজেকে কুশের বংশধর হিসাবে দাবি করা বিজেপির সাংসদ দীয়া কুমারীর বক্তব্যের ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই করণী সেনা প্রধানের দাবি তিনি লবের বংশধর। এই প্রেক্ষিতে এদিন সংবাদমাধ্যমের সামনে কালভি বলেন, ‘ভগবান শ্রী রামের বড় ছেলে লবের বংশধর আমি। এবং আমি শিশোড়িয়া রাজপুত।’ সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের সামনে এমনই দাবি করে আপাতত সংবাদ শিরোনামে ওই করণী সেনা প্রধান। একইসঙ্গে দীয়া কুমারীর বক্তব্যকে টেনে এনে তিনি বলেন, আযধ্যার জমি সমস্যা মেটানোর জন্য রামের বংশধরের প্রয়োজন পড়ে না। ওই জমি সঠিক জায়গায় তুলে দেওয়াটাই বিষয়।

উল্লেখ্য, গতকালই শীর্ষ আদালতের বক্তব্যের প্রেক্ষিতে দীয়া কুমারী বলেন, ‘ভগবান রামের বংশধর সাড়া দুনিয়াতে রয়েছে। আমার পরিবারও শ্রী রামের পুত্র কুশের বংশধর।’ শুধু দীয়াই নন, একই দাবি জয়পুরের প্রাক্তন রানি পদ্মিনী দেবীরও। সম্প্রতি এক সংবাদমাধ্যমে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, তাঁর পরিবার কুশের বংশ থেকে এসেছে। তাঁর কথায়, ‘জয়পুরের প্রাক্তন রাজা ও আমার স্বামী ভবানী সিংহ ৩০৯ নম্বর বংশধর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here